শ্রীলঙ্কা নয়, সবচেয়ে বেশি দৌড়ঝাঁপ করতে হবে বাংলাদেশকেই

প্রকাশিত: ১০:২৭ অপরাহ্ণ, জুন ৫, ২০২৪

শ্রীলঙ্কা নয়, সবচেয়ে বেশি দৌড়ঝাঁপ করতে হবে বাংলাদেশকেই

স্পোর্টস ডেস্ক : ২০২৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সূচি নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। এ নিয়ে সবার আগে মুখ খুলেছে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দল।

 

তাদের অভিযোগ, গ্রুপ পর্বে চার ম্যাচের সবকটি তাদের খেলতে হবে চারটি ভিন্ন ভেন্যুতে। ফলে এক ম্যাচ খেলে তাদের দীর্ঘ পথ ভ্রমণ করতে হবে আরেক ম্যাচের জন্য। যা তাদের পারফরম্যান্সের ওপর প্রভাব ফেলবে।

 

বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা ও স্পিনার মহেশ থিকসানা। গ্রুপ পর্বে কোনো দল চারটি আলাদা ভেন্যুতে খেলবে, আবার কোনো দল খেলবে দুই ভেন্যুতে। যা নিয়ে ক্রিকেটবিশ্বে শোরগোল পড়ে গেছে। এমনকি আইসিসির সমালোচনা হয়েছে শ্রীলঙ্কার জাতীয় সংসদেও। শ্রীলঙ্কার সঙ্গে আইসিসির বিরুদ্ধে ‘সৎমায়ের মতো’ আচরণের অভিযোগ তুলেছেন দেশটির এক সংসদ সদস্য। তবে বাস্তবতা হচ্ছে, শ্রীলঙ্কা নয়, গ্রুপ পর্বে সবচেয়ে বেশি ভ্রমণের ধাক্কা সামলাতে হবে বাংলাদেশ দলকেই।

 

ক্রিকেটভিত্তিক ম্যাগাজিন ‘উইজডেন’ সব দলের সূচি ঘেঁটে জানিয়েছে, এ বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি দৌড়ঝাঁপ করতে হবে শান্তবাহিনীকে। সবমিলিয়ে গ্রুপ পর্বে মোট ৯ হাজার ৯২১ কিলোমিটার পথ ভ্রমণ করবেন তারা। তাদের শুরুটা হবে ডালাসে, এরপর নিউইয়র্ক হয়ে কিংসটাউন।

 

বাংলাদেশের পর সবচেয়ে বেশি পথ ভ্রমণ করবে শ্রীলঙ্কা। দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ ফ্লোরিডাতেই খেলেছে তারা। কিন্তু এরপর প্রথম রাউন্ডে তাদের সবমিলিয়ে ভ্রমণ করতে হবে মোট ৮ হাজার ৯৭ কিলোমিটার। তৃতীয় স্থানে আছে নেদারল্যান্ডস। সবমিলিয়ে গ্রুপ পর্বে ৭ হাজার ৩৮০ কিলোমিটার ভ্রমণ করবে ডাচরা। এমনকি মাত্র ১ হাজার ৪২ কিলোমিটার ভ্রমণ করলেও চার ভেন্যুতে খেলতে হবে স্কটল্যান্ডকেও।

 

১২টি দলকে গ্রুপ পর্বে মাত্র ২-৩ তিনবার স্থান পরিবর্তন করতে হবে। তিনবার করে ভিন্ন ভেন্যুতে খেলতে হবে আফগানিস্তান, অস্ট্রেলিয়া, নামিবিয়া, ওমান এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। এই পাঁচ দলের মধ্যে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সহ-আয়োজক হলেও সবমিলিয়ে ১ হাজার ৭০৯ কিলোমিটার ভ্রমণ করবে। আর সবচেয়ে কম ভ্রমণ করবে ওমান, ৮৯১ কিলোমিটার। দুইবার ভেন্যূ পরিবর্তন করলেও নেপালকে পাড়ি দিতে হবে ৪ হাজার ২১৪ কিলোমিটার; আর কানাডা, যুক্তরাষ্ট্র ও পাকিস্তান দলকে ৩ হাজার ৯২২ কিলোমিটার।

 

সবচেয়ে ভাগ্যবান ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকা, নিউজিল্যান্ড এবং ইংল্যান্ড। মাত্র একবার করে স্থান পরিবর্তন করতে হবে তাদের। তাদের একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচ এবং গ্রুপ পর্বের ৩টি ম্যাচই নিউইয়র্কে। অর্থাৎ এক ভেন্যুতে টানা চার ম্যাচ খেলার ‘সুবিধা’ পাচ্ছে রোহিতবাহিনী। একই ‘সুবিধা’ পাচ্ছে শুধু সহ-আয়োজক যুক্তরাষ্ট্র। তবে দূরত্বের দিক থেকে সবচেয়ে কম ভ্রমণ করবে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড (৫০৫ কিলোমিটার)। শুধু বার্বাডোজ থেকে অ্যান্টিগাতে যেতে হবে তাদের।

কম খরচে পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিন

কম খরচে পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিন