ভিয়েতনামের ন্যাশনাল এসেম্বলি প্রেসিডেন্টের নেতৃত্বে প্রতিনিধিদলের বাংলাদেশ সফর একটি মাইলফলক – স্পীকার

প্রকাশিত: ১২:৩৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২১, ২০২৩

ভিয়েতনামের ন্যাশনাল এসেম্বলি প্রেসিডেন্টের নেতৃত্বে প্রতিনিধিদলের বাংলাদেশ সফর একটি মাইলফলক – স্পীকার

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপি বলেন, ভিয়েতনাম বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু। ভিয়েতনাম-বাংলাদেশ দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক পঞ্চাশ বছর সম্পন্ন করেছে। এই সময়ে ভিয়েতনামের ন্যাশনাল এসেম্বলি প্রেসিডেন্টের নেতৃত্বে প্রতিনিধিদলের বাংলাদেশ সফর একটি মাইলফলক। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও ভিয়েতনামের ঐতিহাসিক নেতা হো চি মিন দুজনেই সাধারণ মানুষের কল্যাণে আমৃত্যু কাজ করেছেন। দুই জাতিরই ঐতিহাসিক সংগ্রামের ইতিহাস রয়েছে।

 

স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপি-র নেতৃত্বে সংসদীয় প্রতিনিধিদলের সাথে আজ সংসদ ভবনস্থ কেবিনেট কক্ষে অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ সফররত ভিয়েতনামের ন্যাশনাল এসেম্বলি প্রেসিডেন্ট ভুওং ডিন হুয়ে-র নেতৃত্বে ভিয়েতনামের প্রতিনিধিদলের দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে স্পীকার আজ এসব কথা বলেন।

স্পীকার

বৈঠকে বাংলাদেশ ভিয়েতনাম সুদীর্ঘ বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক, দুদেশের ভৌগোলিক ও সাংস্কৃতিক সাদৃশ্য, বাংলাদেশের চলমান অভূতপূর্ব উন্নয়ন, ভিয়েতনাম-বাংলাদেশ দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের উন্নয়ন, পারস্পরিক সফর বিনিময়ের মাধ্যমে অভিজ্ঞতা অর্জন, ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসার, বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অঞ্চলে ভিয়েতনামের বিনিয়োগ ইত্যাদি বিষয় নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা হয়।

 

বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের স্পীকারের আমন্ত্রণে সংসদ ভবন পরিদর্শন ও দ্বিপাক্ষিক বৈঠকের বিষয়টি ঐতিহাসিক উল্লেখ করে ভুওং ডিন হুয়ে বলেন, বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক স্থিতিশীলতা ও চলমান উন্নয়ন কার্যক্রম অত্যন্ত প্রশংসনীয়। দারিদ্র্য দূরীকরণ, অর্থনৈতিক ও অবকাঠামোগত উন্নয়ন ইত্যাদিসহ ২০৪১ সালের মধ্যে স্মার্ট বাংলাদেশ অর্জনে দ্রুতগতিতে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। দুদেশের সংসদ তথা দুদেশের মানুষের সাথে সম্পর্ক ভবিষ্যতে আরো সুদৃঢ় হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

স্পীকার

স্পীকার বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে পৃথিবীতে বাংলাদেশ আজ উন্নয়ন বিস্ময়। তাঁর নিরলস প্রচেষ্টায় বাংলাদেশ আজ উন্নয়নশীল দেশের কাতারে। তাঁর নেতৃত্বে দেশে কোভিড সফলভাবে মোকাবেলা করে অর্থনীতি সচল রাখা, শতভাগ বিদ্যুতায়ন, দারিদ্র্যের হার ৪০শতাংশ থেকে ১৮শতাংশে হ্রাস, নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মাসেতু নির্মাণ, মেট্রোরেল, এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ, কর্ণফুলী টানেল ও গভীর সমুদ্রবন্দর নির্মাণ, নারীর অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক ক্ষমতায়ন, সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনী বাস্তবায়নের মাধ্যমে জনজীবন সুরক্ষা, জিডিপি প্রবৃদ্ধি, জলবায়ু পরিবর্তন ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিবেচনায় ডেল্টা প্লান ২১০০ গ্রহণসহ ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত বাংলাদেশ নির্মাণে সরকার কাজ করে যাচ্ছে। দেশে রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা বিরাজমান থাকায় বর্তমানে দেশে বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ বিদ্যমান। এসময়, বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলোতে চামড়া শিল্প, সিরামিক শিল্প, হিমায়িত খাদ্য প্রসেসিং ইত্যাদি ক্ষেত্রে ভিয়েতনাম সরকারের প্রতি বিনিয়োগের আহ্বান জানান স্পীকার।

 

স্পীকার বলেন, বাংলাদেশ ও ভিয়েতনামের পারস্পরিক ব্যবসা-বাণিজ্যের বহু সম্ভাবনা বিদ্যমান। ভিয়েতনাম বাংলাদেশ থেকে ফার্মাসিউটিক্যালস, ইলেকট্রনিক, চামড়াজাত পণ্যসমূহ এবং বিভিন্ন খাতে দক্ষ জনবল আমদানি করতে পারে। ব্যবসা-বাণিজ্য, কৃষি ইত্যাদি ক্ষেত্রে দুদেশের পারস্পরিক সহযোগিতা বৃদ্ধি জরুরি।

স্পীকার

ভিয়েতনামের ন্যাশনাল এসেম্বলি প্রেসিডেন্ট ভুওং ডিন হুয়ে বলেন, দুদেশের সংসদ, সরকার ও দুদেশের মানুষের মাঝে সম্পর্কন্নোয়নে ভিয়েতনাম সরকার অত্যন্ত আন্তরিক। দুদেশের নারী ও তরুণ সংসদ সদস্যদের পারস্পরিক সফর বিনিময়ের মাধ্যমে উভয় দেশ উপকৃত হতে পারে। এসময়, বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের স্পীকারকে ভিয়েতনাম সফরের আমন্ত্রণ জানান তিনি।

 

দুদেশের ঐতিহাসিক সহযোগিতাপূর্ণ সম্পর্ক শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করে স্পীকার বলেন, রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর শান্তিপূর্ণ প্রত্যাবাসনে ভিয়েতনামের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। এসময় আসিয়ান (ASEAN)-এ ‘সেক্টরাল ডায়ালগ পার্টনার’ হিসেবে বাংলাদেশের অন্তর্ভুক্তিতে ভিয়েতনামের সহযোগিতা কামনা করেন স্পীকার। এরপর, বাংলাদেশ ও ভিয়েতনামের সংসদ এবং দুদেশের সংসদ সচিবালয়ের মধ্যে পারস্পরিক সহযোগিতা বৃদ্ধি সংক্রান্ত সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়।

 

বৈঠকে ভিয়েতনামের ন্যাশনাল এসেম্বলি প্রেসিডেন্ট ভুওং ডিন হুয়ে-র নেতৃত্বে ভিয়েতনাম ন্যাশনাল এসেম্বলি পররাষ্ট্র বিষয়ক কমিটি চেয়ারম্যান ভু হায় হা, ভিয়েতনাম ন্যাশনাল এসেম্বলি বিজ্ঞান, প্রযুক্তি ও পরিবেশ বিষয়ক কমিটি চেয়ারম্যান লি কুয়াং হিউ, সেক্রেটারি অফ দ্যা প্রভিন্সিয়াল পার্টি কমিটি থাই থান কিউ, ভিয়েতনামের পররাষ্ট্র উপমন্ত্রী লি থি থু হাং, ভিয়েতনামের জনসুরক্ষা উপমন্ত্রী লি ভান তুয়েন, ভিয়েতনামের শিল্প ও বাণিজ্য উপমন্ত্রী ফান থি থাং, ভিয়েতনামের পরিকল্পনা উপমন্ত্রী ত্রান কুয়োক ফুওং, ভিয়েতনামের সংস্কৃতি, ক্রীড়া ও পর্যটন উপমন্ত্রী তা কুয়াং ডং প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া, বৈঠকে বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের চীফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী এমপি, হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি, মেহের আফরোজ এমপি, উম্মে ফাতেমা নাজমা বেগম এমপি, মো: শফিকুল ইসলাম শিমুল এমপি, সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল এমপি, আবুল কালাম মো. আহসানুল হক চৌধুরী ডিউক এমপি, রওশন আরা মান্নান এমপি, বাসন্তী চাকমা এমপি ও জুয়েল আরেং এমপি অংশগ্রহণ করেন।

 

ইতোপূর্বে, আজ সকালে ভিয়েতনামের ন্যাশনাল এসেম্বলি প্রেসিডেন্ট ভুওং ডিন হুয়ে-র নেতৃত্বে ভিয়েতনামের প্রতিনিধিদল ঢাকা শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছালে বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি তাঁদের স্বাগত জানান। এরপর, তারা ধানমন্ডি ৩২এ অবস্থিত জাতির পিতার সমাধিসৌধে শ্রদ্ধা নিবেদন ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন করেন।

 

দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সিনিয়র সচিব কে এম আব্দুস সালাম। বৈঠকে সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

কম খরচে পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিন

কম খরচে পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিন