সিলেট সেনানিবাসে সশস্ত্র বাহিনী দিবসে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা

প্রকাশিত: ১:৩২ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২১, ২০২২

সিলেট সেনানিবাসে সশস্ত্র বাহিনী দিবসে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা

নিজস্ব প্রতিবেদক : সশস্ত্র বাহিনী দিবসে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা দিয়েছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ১৭ পদাতিক ডিভিশন।

সশস্ত্র বাহিনী দিবসে সিলেট সেনানিবাসে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা

সোমবার বিকেলে সেনানিবাসে দিবসের কেক কাটার আগে খেতাবপ্রাপ্ত জীবিত ৬ ও শহিদ ১৮ মুক্তিযোদ্ধাদের পরিবারকে সংর্বধনা দেওয়া হয়।
সশস্ত্র বাহিনী দিবসে সিলেট সেনানিবাসে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্মরণ করে মেজর জেনারেল চৌধুরী মোহাম্মদ আজিজুল হক হাজারী বলেন, ‘পেশাগত দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি সশস্ত্র বাহিনী জাতীয় পর্যায়ে যে কোনো দুর্যোগ মোকাবেলা, অবকাঠামো নির্মাণ, আত্মমানবতার সেবা, সন্ত্রাস ও জঙ্গি দমন, বেসামরিক প্রশাসনকে সহায়তা এবং বিভিন্ন দেশগঠনমুলক কর্মকা-ের মাধ্যমে দেশের সার্বিক উন্নয়নে অবদান রাখছে। জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করে আন্তর্জাতিক পরিম-লে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করছে।’
তিনি আরও বলেন, ‘আধুনিকায়ন, সম্প্রসারণ ও যুগোপযোগী করার লক্ষে আধুনিক প্রযুক্তি সমৃদ্ধ সামরিক সরঞ্জাম দিয়ে সশস্ত্র বাহিনীকে আরও শক্তিশালী করতে বর্তমান সরকার সবসময় আন্তরিক।

সশস্ত্র বাহিনী দিবসে সিলেট সেনানিবাসে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা

বক্তব্যে মেজর জেনারেল চৌধুরী মোহাম্মদ আজিজুল হক হাজারী অনুষ্ঠানে আগত সব মুক্তিযোদ্ধা, শহিদ পরিবারের সদস্য ও আমন্ত্রিত অতিথিদের ধন্যবাদ জানান। অনুষ্ঠানে সামরিক-বেসামরিক প্রশাসনের কর্মকর্তা, সিলেট কর্মরত সাংবাদিক ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানে সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক, মুকাব্বির খান, হাবিবুর রহমান হাবিব, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়েল ভিসি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমদসহ রাজনৈতিক ও সামরিক-বেসামরিক প্রশাসনের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সশস্ত্র বাহিনী দিবসে সিলেট সেনানিবাসে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা

কম খরচে পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিন

কম খরচে পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিন