সিলেটে আবাসিক হোটেলে অসামাজিক কার্যকলাপে জড়িত ২৫ যুবক-যুবতীকে আটক

প্রকাশিত: ৫:১৩ অপরাহ্ণ, মার্চ ৪, ২০২৪

সিলেটে আবাসিক হোটেলে অসামাজিক কার্যকলাপে জড়িত ২৫ যুবক-যুবতীকে আটক

নিউজ ডেস্ক : সিলেটে আবাসিক হোটেলগুলোতে দিনের বেলা বদলে যায় পরিবেশ। নগরীর বিভিন্ন আবাসিক হোটেলগুলোতে লেগে থাকে উঠতি বয়সী যুবক-যুবতীদের ভিড়। হোটেলগুলোর পাশে থাকা অন্যান্য ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ব্যবসায়ীরা এতে অতিষ্ঠ। চোখের সামনে অনেক কিছু ঘটলেও চুপটি করে থাকতে হয় তাদেরকে। কারণ প্রতিবাদ করলে পড়তে হয় নানা সমস্যায়। তবে এবার আবাসিক হোটেলগুলোতে ‘চোখ’ পড়েছে সিলেট মহানগর গোয়েন্দা(ডিবি) পুলিশের।

 

সিলেট নগরীর বিভিন্ন আবাসিক হোটেলগুলোতে অসামাজিক কার্যকলাপ ও পতিতাবৃত্তির বিরুদ্ধে অভিযান চালাচ্ছে গোয়ান্দা পুলিশ। গত দুই সপ্তাহে নগরীর বিভিন্ন আবাসিক হোটেল থেকে অসামাজিক কার্যকলাপে জড়িত থাকার অভিযোগে আটক করেছে ২৫ যুবক-যুবতীকে।

নারী-পুরুষ আটক

 

মহানগর পুলিশ বলছে, নগরীর আবাসিক হোটেলগুলো থেকে অসামাজিক কার্যকলাপ রোধে কঠোর অবস্থানে রয়েছে পুলিশ। গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করছে।

 

সর্বশেষ শনিবার (২মার্চ) নগরীর তালতালস্থ হোটেল সুফিয়া (আবাসিক) থেকে অভিযান চালিয়ে ৭ যুবক-যুবতীকে আটক করেছে গোয়ান্দা পুলিশের একটি টিম।

 

আটককৃতরা হলেন- মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ থানার ভানুগাছ এলাকার কবির হোসেনের ছেলে তানভীর হোসেন (১৯), বড়লেখা উপজেলার উত্তর পাকনা গ্রামের মতিউর রহমানের ছেলে আব্দুল জব্বার(২৭), সুনামগঞ্জ সদর থানার সরদারপুর গ্রামের মো.সেলিম মিয়ার ছেলে মাজহারুল ইসলাম(২১), দক্ষিণ সুরমার মোগলাবাজার থানার ধরমপুর গ্রামের মইন উদ্দিনের ছেলে রাফি আহমদ(২৪), একই উপজেলার করিমপুর গ্রামের ইসমাইল আলীর মেয়ে রুবিনা বেগম(২১), গোয়াইনঘাটের হাদারপাড় গ্রামের ছেরাগ আলীর মেয়ে লুতফা বেগম(৩০), সুনামগঞ্জের শান্তিগঞ্জ উপজেলার ধনপুর গ্রামের আতাউর রহমানের মেয়ে শাহীনা আক্তার(২১)।

 

এরআগে বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) দক্ষিণ সুরমার কদমতলি এলাকার কয়েস আবাসিক হোটেল থেকে ৪ যুবক-যুবতীকে আটক করা হয়।

 

আটককৃতরা হলেন-মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়া উপজেলার সাধনপুর গ্রামের মো. গিয়াজ উদ্দিনের ছেলে মো. সাহাব উদ্দিন সাজু (৩১), সিলেটের ওসমানীনগর উপজেলার পূর্ব তাজপুর গ্রামের আজেদ আলীর ছেলে মো. নয়ন মিয়া (২৮), একই উপজেলার গোয়ালাবাজার তাজপুর এলাকার রফিক মিয়ার স্ত্রী ঝুমা বেগম (২৭) ও গোপালগঞ্জ জেলার কোটালীপাড়া থানার বৈকুন্ঠপুর গ্রামের সুরুষ গুপ্ত’র মেয়ে পপি গুপ্ত (৩০)।

 

মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ওসমানী হাসপাতাল এলাকার হোটেল বাধন আবাসিক থেকে মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) অভিযানে ৪ জনকে আটক করা হয়।

 

আটকৃতরা হলেন- সিলেটের দক্ষিণ সুরমার খাড়ারপাড় গ্রামের শুক্কুর মিয়ার ছেলে মো. সোহেল মিয়া (৩৫), জকিগঞ্জ উপজেলার সোনাসার গ্রামের হিরা মিয়ার মেয়ে ফারজানা আক্তার (১৯), সুনামগঞ্জ জেলার দোয়ারাবাজার থানার কুরেশপুর গ্রামের আব্দুস সোবহানের ছেলে মো. উজ্জল আহমদ (২০) ও খুলনা জেলার রুপসা থানার চানমারীবাজার গ্রামের মৃত আরব আলীর মেয়ে ঝর্না বেগম (২০)।

 

শুক্রবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে সিলেটের দক্ষিণ সুরমার তিতাস অবাসিক হোটেল থেকে ১০জনকে আটক করা হয়।

 

আটককৃতরা হলেন- ইমরান শেখ (১৮), শামসুল মিয়া (২৬), ময়না আহমদ (২৫), আসাদ শেখ (২৪), মোঃ কুটি মিয়া (৪২), সজিব দাস (২৬), রুবেল মিয়া (২২), শারমিন (২৫), পারভিন আক্তার লিজা (২৬), শ্যামলি খাতুন (২৬)।

 

এবিষয়ে সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (মিডিয়া) মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম সিলেটপ্রতিদিনকে বলেন, আমাদের কমিশনার মহদোয়ের নির্দেশে সিলেট নগরীর আবাসিক হোটেলগুলোতে অসামাজিক কর্মকাণ্ড বন্ধে অভিযান পরিচালিত হচ্ছে। ইতোমধ্যে হোটেল মালিকদের অসামাজিক কর্মকাণ্ড বন্ধ করতে সতর্ক করে দেয়া হয়েছে। যাতে কেউ এ ধরনের কাজে জড়িত না থাকেন। এরপরও বন্ধ না করায় আমরা নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করছি।

কম খরচে পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিন

কম খরচে পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিন