নেচে-গেয়ে ‘বীরত্ব’র প্রচারে ইমন-সালওয়া

প্রকাশিত: ৩:৪০ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১০, ২০২২

নেচে-গেয়ে ‘বীরত্ব’র প্রচারে ইমন-সালওয়া

অনলাইন ডেস্ক : আগামী ১৬ সেপ্টেম্বর দেশব্যাপী মুক্তি পেতে যাচ্ছে তরুণ নির্মাতা সাইদুল ইসলাম রানা পরিচালিত প্রথম সিনেমা ‘বীরত্ব’। মুক্তিকে সামনে রেখে এরই মধ্যে প্রচারণায় সক্রিয় সিনেমার ইউনিট।

 

সিনেমার প্রধান দুই চরিত্রে ইমন-সালওয়া দুজনকেই দেখা যাবে এমবিবিএস চিকিৎসকের চরিত্রে। যেহেতু সিনেমার পটভূমি চিকিৎসকদের নিয়ে এজন্য সিনেমা হল ও অন্যান্য জায়গায় প্রমোশনের পাশাপাশি বিভিন্ন মেডিকেল কলেজে গিয়ে প্রচারণায় অংশ নিচ্ছেন ‘বীরত্ব’ সিনেমার নির্মাতা, অভিনয়শিল্পী ও অন্যান্য কলাকুশলীরা।

 

শনিবার (১০ সেপ্টেম্বর) ছিল ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজ ও ইউনিভার্সেল নার্সিং কলেজের নবীন বরণ অনুষ্ঠান। নবীনদের এদিনকে আরও আনন্দিত করতে ‘বীরত্ব’ টিম পৌঁছায় মহাখালীতে অবস্থিত রাওয়া ক্লাবে আয়োজিত নবীন বরণ অনুষ্ঠানে। শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ইমন ও সালওয়া নাচে-গানে মঞ্চ মাতানোর পাশাপাশি সিনেমাটি নিয়ে কুইজ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে কলেজ কর্তৃপক্ষ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন আরজে নিরব। এ সময় সব শিক্ষার্থীদের হলে গিয়ে সিনেমা দেখার আহ্বান করেন ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের ম্যানেজিং ডিরেক্টর ডা. আশীষ কুমার চক্রবর্তী।

 

অনুষ্ঠানে ইমন বলেন, ‘আমার ছোটবেলার ইচ্ছা ছিল ডাক্তার হয়ে মানুষের সেবা করা। কিন্তু সে আশা পূরণ হয়নি। হয়েছি অভিনেতা। কিন্তু আমার ডিরেক্টর এমবিএস পাস না করিয়েই ডাক্তার রাজু বানিয়ে দিয়েছে। এই সিনেমায় আমি ডাক্তার রাজু হিসেবে রোগী দেখেছি, তাদের ওষুধ দিয়েছে এবং তারা সুস্থও হয়েছে।’

 

‘করোনা মহামারির সময় ডাক্তাররা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মানুষের পাশে থেকে কাজ করে গেছেন এজন্য পৃথিবীর সব ডাক্তারদের স্যালুট জানাই। বাংলাদেশে র‍্যাব, পুলিশ নিয়ে অনেক সিনেমা হয়েছে। কিন্তু একজন ডাক্তারের জীবনটাকে সেভাবে কোনো সিনেমায় তুলে ধরা হয়নি। ‘বীরত্ব’তে আমি ডাক্তারদের প্রতিনিধিত্ব করেছি।’

 

সিনেমার পরিচালক সাইদুল ইসলাম রানা বলেন, ‘ডাক্তারি পেশার প্রতি আমার শ্রদ্ধাবোধ সবসময়ই। এই সিনেমায় আমি ডাক্তারদের বীরত্বের কথাও বলেছি। আপনারা সিনেমাটি হলে গিয়ে দেখলে সেটা অনুভব করতে পারবেন।’

 

এ সিনেমার মাধ্যমে বড়পর্দায় অভিষেক হচ্ছে নিশাত নাওয়ার সালওয়ার। নায়িকা বলেন, ‘আমি এই সিনেমায় ডাক্তার দিনাত চরিত্রে অভিনয় করেছি। আমরা প্রত্যেকে এই সিনেমার জন্য অনেক কষ্ট করেছি। আপনারা হলে গিয়ে সিনেমা দেখলে আমাদের কষ্ট সার্থক হবে।’

 

সিনেমার নির্বাহী প্রযোজক রঞ্জন দত্ত বলেন, ‘এটা আমার প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান পিংপং এন্টারটেইনমেন্টের তৃতীয় সিনেমা। এই সিনেমার গল্প আমাকে পরিচালক যখন শোনাল আমার খুবই ভালো লেগেছিল। একজন ডাক্তার শুধু রোগ নিরাময়ে পাশে থাকে তা নয়, সমাজের বিভিন্ন ক্রাইসিস মুহূর্তে ডাক্তাররা যেভাবে ঝাঁপিয়ে পড়ে সেটা দেখানো হয়েছে। পুরো পরিবার একত্রে দেখার মতো একটি সিনেমা এটি। আশা করছি সিনেমাটি দেখে কেউ নিরাশ হবেন না।’

 

পরিচালনার পাশাপাশি সিনেমাটির চিত্রনাট্য ও সংলাপ লিখেছেন নির্মাতা সাইদুল ইসলাম রানা। পিং পং এন্টারটেইনমেন্টের ব্যানারে সিনেমাটি প্রযোজনা করেছেন শুক্লা বণিক। ইমন-সালওয়া ছাড়াও সিনেমার বিভিন্ন চরিত্রে আরও অভিনয় করেছেন বড়দা মিঠু, আহসান হাবীব নাসিম, ইন্তেখাব দিনার, জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়সহ অনেকে।