September 26, 2020 9:01 pm
Breaking News
Home / Home / শ্রদ্ধা-ভালোবাসায় সি আর দত্তকে চিরবিদায়
সি আর দত্ত

শ্রদ্ধা-ভালোবাসায় সি আর দত্তকে চিরবিদায়

অনলাইন ডেস্ক : শোক, শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় চিরবিচায় জানানো হলো মুক্তিযুদ্ধকালীন ৪ নম্বর সেক্টরের কমান্ডার ও বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মেজর জেনারেল (অব.) চিত্ত রঞ্জন দত্তকে (সি আর দত্ত)।

মঙ্গলবার রাজধানীর সবুজবাগের কালীমন্দির শ্মশানে এই বীর উত্তমের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে।

ঢাকেশ্বরী মন্দির থেকে সি আর দত্তের মরদেহ সেখানে পৌঁছালে সেনাবাহিনীর একটি চৌকস দল গার্ড অব অনার প্রদান করে। পরে সেখানেই তার অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন হয়।

এর আগে সকালে মরদেহ নেয়া হয় রাজধানীর ঢাকেশ্বরী মন্দিরে। সেখানে তার মরদেহে শ্রদ্ধা জানান বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। ঢাকা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ঢাকেশ্বরী মন্দিরে এই বীর উত্তমকে রাষ্ট্রীয় সম্মান জানায় পুলিশের একটি চৌকস দল।

গত ২৫ আগস্ট বাংলাদেশ সময় সকাল ৯টার দিকে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান মেজর জেনারেল (অব.) চিত্ত রঞ্জন দত্ত (সি আর দত্ত) বীর উত্তম।

তার মরদেহ যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে পৌঁছানোর পর সোমবার রাখা হয় ঢাকা সিএমএইচের হিমঘরে। মঙ্গলবার সকালে পরিবার ও স্বজনদের শেষ দেখার জন্য কফিন নেওয়া হয় তার বনানী ডিওএইচএসের বাসায়। সেখান থেকে সকাল সোয়া ৮ টার দিকে ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরে নিয়ে যাওয়া হয় সি আর দত্তের মরদেহ।

১৯২৭ সালের ১ জানুয়ারি আসামের রাজধানী শিলংয়ে জন্মগ্রহণ করেন সি আর দত্ত। বাবা উপেন্দ্র চন্দ্র দত্ত ছিলেন পুলিশ অফিসার। পরে তারা স্থায়ীভাবে চলে আসেন হবিগঞ্জে। ১৯৫১ সালে তখনকার পাকিস্তান সেনাবাহিনীতে যোগ দেওয়ার চার বছরের মাথায় পাকিস্তান-ভারত যুদ্ধে আসালংয়ে একটি কোম্পানির কমান্ডার হিসেবে যুদ্ধ করেন সি আর দত্ত।

১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতার সংগ্রামের চূড়ান্ত মুহূর্ত যখন উপস্থিত, সে সময় ছুটিতে দেশেই ছিলেন সি আর দত্ত। তখন তিনি পাকিস্তান সেনাবাহিনীর ফ্রন্টিয়ার ফোর্সের মেজর। বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণে উদ্দীপ্ত সি আর দত্ত মুক্তিযুদ্ধে যোগ দেওয়ার পর তাকে দেওয়া হয় ৪ নম্বর সেক্টরের কমান্ডারের দায়িত্ব।

সিলেট অঞ্চলে ওই সেক্টরে হানাদার বাহিনীর সঙ্গে মুক্তিযোদ্ধাদের বহু যুদ্ধ সংঘটিত হয়, যার বেশ কয়েকটিতে নিজেই নেতৃত্ব দেন সি আর দত্ত। মুক্তিযুদ্ধে অসামান্য কৃতিত্ব ও অবদানের জন্য দেশ স্বাধীন হওয়ার পর তাকে ‘বীর উত্তম’ খেতাবে ভূষিত করা হয়।

About sylhet24express

Check Also

মারুফ-রুজিনা’র বিয়েতে স্বর্ণালী সাহিত্য পর্ষদ,সিলেট নেতৃবৃন্দের শুভেচ্ছা

স্টাফ রিপোর্টার::সিলেট নগরীর শাহী ঈদগাহস্হ আমান উল্লাহ কনভেনশন সেন্টারে আজ ২৬ সেপ্টেম্বর শনিবার সমাজকর্মী মারুফ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *