September 29, 2020 3:46 pm
Breaking News
Home / বিনোদন / ফিরলেন তানিয়া, সঙ্গে চুমকি
ছবি : আলিফ হোসেন রিফাত

ফিরলেন তানিয়া, সঙ্গে চুমকি

ছবি : আলিফ হোসেন রিফাত

বিনোদন ডেস্ক : গেল বছরের শেষের দিকে এসে মা হয়েছেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী ও উপস্থাপিকা তানিয়া হোসেন। স্বামী বাপ্পা মজুমদার ও কন্যা পিয়েতা’কে নিয়ে বেশ সুখে আছেন তিনি। সর্বশেষ তাঁকে দেখা গিয়েছিল এনটিভিতে প্রচারিত নজরুল ইসলাম রাজু পরিচালিত ‘সানফ্লাওয়ার’ ধারাবাহিক নাটকে। এরপর আর নতুন কোন নাটকে তাকে দেখা যায়নি।

অভিনয়ে ফিরতে কিছুদিন সময় নিলেও এরইমধ্যে অংশ নিয়েছেন ছকে বাঁধা জীবনের বাইরে অন্যরকম একটি অনুষ্ঠানে। ভারতে চার পুরুষ ধরে সুনামের সাথে শাড়ির ব্যবসা করে আসছে আদি ঢাকেশ্বরী যার বর্তমান মালিক নিতাই সাহা। সেই আদি ঢাকেশ্বরী গত শুক্রবার রাজধানীর বসুন্ধরা সিটি’র লেভেল ফোরের ডি ব্লকের ৯৮ নম্বর দোকানে প্রথমবারের মতো যাত্রা শুরু করেছে। ঢাকার আদি ঢাকেশ্বরী’র দায়িত্বে আছেন তানিম রেজা ও শিবলী সুমন। দু’জনের সার্বিক তত্ত্বাবধানে এই ব্যবসা পরিচালিত হবে বলে জানান তানিম রেজা।

ঢাকায় আদি ঢাকেশ্বরীর শুভারম্ভ অনুষ্ঠানেই অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়েছিলেন তানিয়া হোসেন। তারসঙ্গে ছিলেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী, নাট্যকার ও নাট্যনির্দেশক নাজনীন হাসান চুমকী। এমন একটি অনুষ্ঠানে অংশগ্রহন প্রসঙ্গে তানিয়া হোসেন বলেন, ‘সংসার গুছিয়ে উঠতে না উঠতেই আমি মা হয়েছি। এটা আল্লাহর অশেষ রহমত। এই মুহুর্তে আমি পৃথিবীর মধ্যে ভীষণ সুখী একজন মানুষ। স্বামী, সংসার, সন্তান নিয়ে বেশ ভালো আছি। আদি ঢাকেশ্বরী’র নিমন্ত্রণে তাদের শুভারম্ভ’তে থাকতে পেরেও ভীষণ ভালোলেগেছে আমার। আমার নিজেরই ভীষণ প্রিয় আদি ঢাকেশ্বরীর শাড়ি। তাদের তৈরী শাড়িতে আমি আস্থা রাখি। আশা করি ঢাকাতেও তারা তাদের সেই আস্থা তৈরী করতে পারবেন।’

ফারজানা চুমকী বলেন, ‘ঢাকায় তো তাদের যাত্রা শুরু হলো মাত্র। অনেকের মতো আমারও ভীষণ পছন্দ আদি ঢাকেশ^রীর শাড়ি। শুভ কামনা রইলো ঢাকার বসুন্ধরার তাদের নতুন পথচলায়।’

‘আদি ঢাকেশ্বরী’তে সব ধরনের বেনারসী, কাতান, গাদওয়াল, সিল্ক, জরজেট’সহ বিভিন্ন ধরনের শাড়ি পাওয়া যাচ্ছে।

About sylhet24express

Check Also

সালমান শাহ’র পরিবারের বিরুদ্ধে সামিরার ১০ কোটি টাকার মামলা

বিনোদন ডেস্ক : দেশের চলচ্চিত্রে অন্যতম জনপ্রিয় নায়ক সালমান শাহ’র পরিবারের বিরুদ্ধে ১০ কোটি টাকার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *