September 30, 2020 2:20 am
Breaking News
Home / Home / শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস আজ
PM

শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস আজ

সিলেট টুয়েন্টিফোর এক্সপ্রেস ডেস্ক : আজ ১৬ জুলাই বৃহস্পতিবার আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস। ২০০৭ সালের এই দিনে কাকডাকা ভোরে সেনাসমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের বাহিনী শেখ হাসিনাকে তার ধানমণ্ডির বাসভবন সুধাসদন থেকে গ্রেফতার করে। দেশের রাজনীতি ও গণতন্ত্রকে অবরুদ্ধ করতেই বর্তমান প্রধানমন্ত্রীকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। তার গ্রেফতারের মধ্য দিয়ে আওয়ামী লীগকে পঙ্গু করতে চেয়েছিল তৎকালীন সরকার ও তাদের আশীর্বাদপুষ্টরা। তবে এমন বিরূপ পরিস্থিতির মধ্যেও গণতন্ত্রের জন্য লড়ে গেছেন শেখ হাসিনা। এমনটাই মানবকণ্ঠকে জানিয়েছেন দলটির জ্যেষ্ঠ নেতারা।

 

জানা যায়, বাংলাদেশের রাজনৈতিক ইতিহাসে যতগুলো বড় পরিবর্তন ঘটেছিল, ২০০৭ সালের ১১ জানুয়ারি তার মধ্যে অন্যতম। এই দিনটিকে তাই ওয়ান-ইলেভেন বা এক-এগারো বলে উল্লেখ করা হয়। বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের একতরফা সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে উদ্ভূত রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে ২০০৭ সালের ১১ জানুয়ারি দেশে জারি হয় জরুরি অবস্থা। পরে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আবরণে গঠিত হয় সেনা নিয়ন্ত্রিত ‘অন্তর্বর্তীকালীন সরকার’।

 

সেনা নিয়ন্ত্রিত তত্ত্বাবধায়ক সরকার মেতে ওঠে রাজনৈতিক দলগুলো ভাঙাগড়ার খেলায়। ড. ফখরুদ্দীন আহমদের নেতৃত্বাধীন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অভিযানে ২০০৭ সালের ১৬ জুলাই গ্রেফতার করা হয় আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে। আদালতে শেখ হাসিনার জামিনের আবেদন নামঞ্জুর হয় এবং তাকে জাতীয় সংসদ ভবনের পাশে বিশেষ কারাগারে রাখা হয়।

 

ওই সময় দুর্নীতি দমন কমিশনের দায়ের করা কয়েকটি মামলায় বিশেষ জজ আদালতে তার বিরুদ্ধে বিচার কার্যক্রম শুরু হয়। পরবর্তী সময়ে ওইসব মামলার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে শেখ হাসিনা হাইকোর্টে রিট করেন। হাইকোর্ট মামলাগুলোর বিচারকাজের ওপর স্থগিতাদেশ দেন। পরে অবশ্য সবকটি মামলাই মিথ্যা প্রমাণিত হয়। তবে মাঝখানে কেটে যায় দীর্ঘ ১১ মাস।

 

দলীয় নেতাদের সূত্রে জানা যায়, শেখ হাসিনার ৩৩১ দিন কারাবাসের প্রতিটি দিন তিনি ভেবেছেন এই বাংলার দুঃখী মানুষের ভবিষ্যৎ নিয়ে, গণতন্ত্র নিয়ে, সর্বোপরি বাংলাদেশ নিয়ে। তিনি জেলে থাকা অবস্থায় ২০০৭ সালের আগস্ট মাসের শুরুর দিকে বন্যা পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ ধারণ করে। এই খবরে তিনি গরিব-দুঃখী মানুষের কথা ভেবে মুষড়ে পড়েন।

 

একই বছর দেশে ঘূর্ণিঝড় সিডর আঘাত হানলে তিনি দলমত নির্বিশেষে সবাইকে অসহায় মানুষের পাশে থাকার আহ্বান জানান। নিজে বন্দি থাকায় দুর্গতদের পাশে দাঁড়াতে না পারায় চরম উদ্বেগ প্রকাশ করেন তিনি। এভাবেই জাতির দুঃসময়ে জেলে বসেই তিনি দলের নেতাকর্মীকে অসহায় মানুষের জন্য কাজ করার দিকনির্দেশনা দেন।

 

নেতারা আরো জানান, বঙ্গবন্ধু কন্যার মুক্তির দাবিতে দেশে-বিদেশে প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। প্রায় ১১ মাস পার হলে শেখ হাসিনার ব্যক্তিগত চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. সৈয়দ মোদাচ্ছের আলী তাকে যুক্তরাষ্ট্রে চিকিৎসার দাবি জানান। উন্নত চিকিৎসার জন্য কারাবন্দি শেখ হাসিনাকে ২০০৮ সালের ১১ জুন আট সপ্তাহের জন্য যুক্তরাষ্ট্রে পাঠানো হয়।

 

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য লে. কর্নেল (অব.) মুহাম্মদ ফারুক খান মানবকণ্ঠকে বলেন, ‘২০০৭ সালে শেখ হাসিনাকে গ্রেফতারের প্রধান উদ্দেশ্য ছিল দেশের রাজনীতি ও গণতন্ত্রকে অবরুদ্ধ করা। নেত্রী একই সঙ্গে খালেদা জিয়াকেও যেন গ্রেফতার না করা হয়, সে-কথাও বলেছিলেন। শেখ হাসিনার গ্রেফতারের মধ্য দিয়ে দেশের উন্নয়ন, জনগণের কণ্ঠকে দমিয়ে রাখার অপচেষ্টা হয়েছিল। কিন্তু সেই অপগোষ্ঠী শেষ পর্যন্ত সফল হয়নি। জনগণের আন্দোলনের মুখেই আমাদের নেত্রীকে তারা মুক্তি দিতে বাধ্য হয়েছিল।’

 

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক মানবকণ্ঠকে বলেন, ‘আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা লুটেরা বিএনপি-জামায়াতের বিরুদ্ধে লড়াই করছিলাম। কিন্তু এক-এগারো ঘটিয়ে তার লড়াইকে তখন থামিয়ে দিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। কিন্তু আমাদের নেত্রীকে কোনো কারণেই গ্রেফতার করার কথা ছিল না। তার গ্রেফতারের মধ্য দিয়ে আওয়ামী লীগকে ধ্বংস করার অপচেষ্টা করেছিল তত্ত্বাবধায়ক সরকার। নেত্রী এমন দুঃসহ পরিস্থিতির মধ্যেও গণতন্ত্রের জন্য লড়েছেন। শেষ পর্যন্ত নেতাকর্মী দুর্বার আন্দোলন করে আমাদের নেত্রীকে মুক্ত করে আনে।’

About sylhet24express

Check Also

এম‌সির ছাত্রাবাসে গণধর্ষ‌ণ, আসামী তারেক সুনামগঞ্জে গ্রেপ্তার

নিউজ ডেস্ক ::সি‌লে‌টের এম‌সি ক‌লে‌জ ছাত্রাবাসে গৃহবধূ ধর্ষ‌ণের ঘটনায় এজাহারভুক্ত আসামী তারেককে সুনামগঞ্জের দিরাই থেকে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *