July 12, 2020 7:09 am
Breaking News
Home / Home / টেকনিক্যাল ট্রেনিং সেন্টার সাচনা বাজারের নিকটবর্তী হোক : দাবী সর্বমহলের

টেকনিক্যাল ট্রেনিং সেন্টার সাচনা বাজারের নিকটবর্তী হোক : দাবী সর্বমহলের

সুনামগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলায় টেকনিক্যাল ট্রেনিং সেন্টার (টিটিসি) নির্মাণ বাস্তবায়নের দারপ্রান্তে আগাম স্বপ্ন দেখছে কয়েক হাজার প্রশিক্ষন নিতে ইচ্ছুক বেকার আগ্রহী ছেলেমেয়ে। দক্ষ মানবসম্পদের চেয়ে কোন সম্পদই বড় নয়। বাংলাদেশের ১৮-৩৫ বছর বয়সী এ বয়সসীমার জনসংখ্যা দেশের মোট জনসংখ্যার প্রায় এক-তৃতীয়াংশ, যা আনুমানিক ৫ কোটি। জনসংখ্যার প্রতিশ্রুতিশীল, উৎপাদনমুখী এই যুবগোষ্ঠীকে সুসংগঠিত, সুশৃঙ্খল এবং দক্ষ মানবসম্পদে রূপান্তরের লক্ষ্যে, আওয়ামী লীগ সরকার নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

জনশক্তিকে সম্পদে পরিণত করার জন্য কর্মমুখী শিক্ষার সম্প্রসারণ ও মানোন্নয়নে ব্যাপক কর্মসূচি বাস্তবায়িত হচ্ছে। জানা যায়, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১৮ সালের নির্বাচনী ইশতেহারে ঘোষণা দিয়েছিলেন প্রতি উপজেলা থেকে গড়ে প্রতি বছর ১ হাজার যুব ও যুব মহিলাকে বিদেশে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা হবে।

ইতিমধ্যে দেশের বিভিন্ন জেলার কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (টিটিসি) থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে আনুষঙ্গিক প্রক্রিয়া শেষে জাপান, ওমান, সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাত সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে গিয়ে কর্মসংস্থানে নিয়োজিত হয়েছেন কয়েক হাজার বেকার যুবক ও মহিলা। তাছাড়া সারা দেশে দক্ষ কর্মীর প্রচুর চাহিদা থাকায় স্থানীয় ও বৈদেশিক চাহিদার ভিত্তিতে দক্ষ কর্মীর লক্ষে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রনালয়ের জনশক্তি ও কর্মসংস্থান ব্যুরো ইতিমধ্যে দেশে ৬৪ টি কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (টিটিসি) ও ৬ টি ইন্সটিটিউট অব মেরিন টেকনোলজি (আইএমটি) নির্মাণ করেছেন।

বর্তমানে ৪০টি কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র নির্মানাধীন রয়েছে। নতুন করে আরো ৬০ টি কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র নির্মাণের জন্য ডিপিপি প্রণয়ন চুড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে বলে জানা যায়। তাই সরকারের দক্ষ কর্মীর লক্ষ্যে যে সকল উপজেলায় এখনো টিটিসি নির্মাণ হয়নি, সেসকল উপজেলাকে অন্তর্ভুক্ত করে একটি প্রকল্পের আওতায় পরিকল্পনা ও বাস্তবায়নের লক্ষ্যে নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্য এবং জেলা প্রশাসনে চিঠিও পাঠিয়েছেন সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়টি।

তার ধারাবাহিকতায়,সুনামগঞ্জ জেলার নির্বাচনী এলাকা ১ আসনের জামালগঞ্জ ও ধর্মপাশা উপজেলাতে ইতিমধ্যে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রনালয়ের জনশক্তি ও কর্মসংস্থান ব্যুরো হতে টিটিসি নির্মানের লক্ষ্যে জায়গা নির্ধারণের জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। নির্দেশনা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে একযোগে কাজ করে যাচ্ছে, সংসদ সদস্য, স্থানীয় প্রশাসন, এবং জেলা ও উপজেলার আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ সহ সুশীল সমাজ।

তথ্য অনুসন্ধানে জানা যায়, জামালগঞ্জ উপজেলার ৬ টি ইউনিয়নের মধ্যে সাচনাবাজার ইউনিয়ন পরিষদ হচ্ছে সবচেয়ে বেশি রাজস্ব দাতা ইউনিয়ন। প্রাচীনতম ঐতিহ্যবাহী সাচনাবাজার ব্যবসাকেন্দ্রটিও অবস্থিত উক্ত ইউনিয়নে। এবং জেলা শহরের সাথে দ্রুততম সময়ে সহজভাবে যোগাযোগ ব্যবস্থার যানবাহনের ষ্ট্যান্ডও এই বাজার সংলগ্নে, যার ফলে উপজেলার প্রায় সকল শ্রেণীপেশার মানুষ নিয়মিত এই বাজারে যাতায়াত করতে হয়।

তাই সামাজিক, রাজনৈতিক, ও সকল দলমত এবং ভেদাভেদের উর্ধ্বে গিয়ে সকলেরই দাবি টেকনিক্যাল ট্রেনিং সেন্টারটি যেন উপজেলার সকল জনগনের সুবিধার্থে উক্ত ইউনিয়নের সাচনা-সুনামগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কের পাশেই যেকোন উন্মুক্ত জায়গায় নির্মাণ করা হয়।

এব্যাপারে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী বলেন, জামালগঞ্জ উপজেলার আশপাশ সবধরনের প্রতিষ্ঠান আছে। কিন্তু নদীর উত্তরে ৩টি ইউনিয়নে উল্লেখযোগ্য কোন প্রতিষ্ঠান না থাকাতে, আমি মনে করি নদীর উত্তরে সাচনা বাজারের আশেপাশে টিটিসি নির্মাণ করলেই ভালো হবে।

সাধারণ সম্পাদক এম নবী হোসেন বলেন উপজেলার মধ্য দিয়ে সুরমা নদী বয়ে যাওয়ায়,নদীর উত্তরে ৩ টি ইউনিয়ন ও দক্ষিণে ৩ টি ইউনিয়ন অবস্থিত। তার মধ্যে নদীর উত্তরে সাচনাবাজার ইউনিয়ন-ই হলো একমাত্র ব্যবসায়িক কেন্দ্র। এবং উপজেলার মোট রাজস্ব আয়ের প্রায় ৮০ ভাগ যায় এই ইউনিয়ন থেকে। যার সাথে জেলা শহর থেকে শুরু করে উপজেলার সকল এলাকায় যাতায়াতের সুযোগ সুবিধা সহজ। তাই সুরমা নদীর উত্তরপারে যোগাযোগ ব্যবস্থাকে সর্বোচ্চ প্রাধান্য দিয়ে উত্তরের যে কোন জায়গায় নির্মাণ করলেই ভালো হবে বলে আমি মনে করি।

জামালগঞ্জ উত্তর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো রজব আলী বলেন, জামালগঞ্জ উত্তর ইউনিয়ন পরিষদ যেহেতু নতুন গঠিত হয়েছে, তাই এই ইউনিয়ন সবচেয়ে বেশি অবহেলিত। মাননীয় এমপি মহোদয়ের সুদৃষ্টি কামনা করি, এবং আমাদের উত্তর ইউনিয়নের যে কোন একটি ভালো জায়গায় টেকনিক্যাল ট্রেনিং সেন্টার প্রতিষ্ঠানটি নির্মাণ করলে উপকৃত হবো। তাই সুরমার উত্তর পারের সকল জনগণের পক্ষে জোর দাবি জানাই।

জামালগঞ্জ উত্তর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো রজব আলী বলেন, জামালগঞ্জ উত্তর ইউনিয়ন পরিষদ যেহেতু নতুন গঠিত হয়েছে, তাই এই ইউনিয়ন সবচেয়ে বেশি অবহেলিত। মাননীয় এমপি মহোদয়ের সুদৃষ্টি কামনা করি, এবং আমাদের উত্তর ইউনিয়নের যে কোন একটি ভালো জায়গায় টেকনিক্যাল ট্রেনিং সেন্টার প্রতিষ্ঠানটি নির্মাণ করলে উপকৃত হবো। তাই সুরমার উত্তর পারের সকল জনগণের পক্ষে জোর দাবি জানাই।

বেহেলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অসিম তালুকদার বলেন, সাচনা গ্রাম চৌধুরী বাড়ির পাশে অথবা সাচনাবাজারের আশেপাশে স্থাপিত করলে আমাদের উপজেলার সকলের জন্য ভালো হবে,পাশাপাশি এটা আমাদের দাবিও।

সাচনা বাজার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল হক আফিন্দি বলেন, জামালগঞ্জ সদরে সব ধরনের প্রতিষ্ঠান রয়েছে, কিন্তু নদীর উত্তরে কোন ধরনের প্রতিষ্ঠান নাই বললেই চলে। তাই আমার দাবি সাচনাবাজারের আশেপাশে যে কোন জায়গায় হলেই ভালো হবে।

উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান গোলাম জিলানী আফিন্দী রাজু বলেন স্বাধীনতার পর থেকে আজ অবধি সুরমার দক্ষিণ পাড় অর্থাৎ জামালগঞ্জ উপজেলার আশেপাশে সবধরনের প্রতিষ্ঠান ও উন্নয়ন মুলক কাজ হয়ে আসছে। কিন্তু সুরমার উত্তর পাড় অবহেলিত এবং এখানে উল্লেখযোগ্য সরকারি কোন প্রতিষ্ঠান নাই। তাই সাচনা বাজারের আশেপাশে যে কোন জায়গায় হোক আমি জোর দাবি জানাই।

About sylhet24express

Check Also

তথ্যমন্ত্রী

সমালোচনার বাক্সবাহী বিএনপিসহ অনেকেই জনগণের পাশে নেই : তথ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক : তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, করোনা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *