Home / শোক সংবাদ

শোক সংবাদ

ভয়াল ২১ আগস্টরে শহীদদরে প্রতি বঙ্গবন্ধু গবষেণা পরষিদরে পুস্পস্তবক র্অপণ ও শ্রদ্ধা নবিদেন

নিজস্ব প্রতিবেদক : বঙ্গবন্ধু গবষেণা পরষিদরে কন্দ্রেীয় সভাপতি লায়ন মোঃ গনি ময়িা বাবুল এর নতেৃত্বে ২০০৪ সালরে ২১ আগস্ট বঙ্গবন্ধু এভনিউিতে আওয়ামী লীগরে সন্ত্রাস বরিোধী শান্তি সমাবশেে নারকীয় গ্রনেডে হামলায় শহীদদরে প্রতি ২১ আগস্ট বুধবার সকাল ১০টায় ২৩ বঙ্গবন্ধু এভনিউিস্থ নর্মিতি বদেতিে পুস্পস্তবক র্অপণ ও শ্রদ্ধা নবিদেন করা হয়। এরপর বাংলাদশে আওয়ামী লীগরে কন্দ্রেীয় র্কাযালয়রে সামনে সমাবশে ও সংক্ষপ্তি আলোচনা সভা অনুষ্ঠতি হয়। বঙ্গবন্ধু গবষেণা পরষিদরে কন্দ্রেীয় সভাপতি লায়ন মোঃ গনি ময়িা বাবুল এর সভাপতত্বিে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখনে, সংগঠনরে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তযিোদ্ধা মোঃ নুরুল ইসলাম তালুকদার, নর্বিাহী সদস্য মোঃ মাসুদ আলম, সদস্য মোঃ আনোয়ার হোসনে, মোঃ নুরুল ইসলাম বাবুল, পলাশ চৌধুরী, মোঃ আরফিুজ্জামান, হুমায়ুন কবরি হমিু প্রমুখ।

সভাপতরি বক্তব্যে লায়ন মোঃ গনি ময়িা বাবুল বলনে, বাংলাদশে আওয়ামী লীগকে নতেৃত্বশূণ্য করতইে ২০০৪ সালরে ২১ আগস্ট ইতহিাসরে জঘন্যতম র্ববরোচতি এই হত্যাকান্ড চালয়িছেলি ৭১’র পরাজতি স্বাধীনতাবরিোধীচক্র। মূলত ১৯৭৫ সালরে ১৫ আগস্টরে হত্যাকান্ড ও ২০০৪ সালরে ২১ আগস্টরে গ্রনেডে হামলা একই সূত্রে গাথা। তনিি আরো বলনে, আগস্টরে মতো ট্র্যাজডেি যনে আর কোনদনি না আস,ে সইে লক্ষ্যে সকলকে সচষ্টে থাকতে হব।ে একুশ আগস্টরে খুনীদরে র্সবােচ্চ শাস্তি নশ্চিতি করতে দ্রুত র্কাযকর পদক্ষপে গ্রহণ করার জন্যে তনিি দাবি জানান।

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ সরকারী কর্ম কমিশনে আলোচনা সভা

সিলেট টুয়েন্টিফোর এক্সপ্রেস ডেস্ক : জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর ৪২তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ সরকারী কর্ম কমিশনে ১৩ আগস্ট, ২০১৭ তারিখ বিকাল ৩.০০ ঘটিকায় এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। অত্যন্ত ভাবগাম্ভীর্য্যপূর্ণ এবং শোকাবহ পরিবেশে আলোচনা সভায় স্বাধীন বাংলাদেশের মহান স্থপতি, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী বঙ্গবন্ধুর জীবনী নিয়ে আলোকপাত করা হয়। অনুষ্ঠানে স্বাধীন বাংলাদেশ সৃষ্টিতে মহান এ নেতার অবদান বিনম্র শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করা হয় এবং ৭৫ এর বিয়োগান্তক ঘটনাকে ধিক্কার জানানো হয়। অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করা হয়।

viber%20image       viber%20image1

উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সরকারী কর্ম কমিশনের চেয়ারম্যান জনাব ড. মোহাম্মদ সাদিক এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কমিশনের বিজ্ঞ সদস্য সমর চন্দ্র পাল। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জনাব বেগম আক্তারী মমতাজ, সচিব, বাংলাদেশ সরকারী কর্ম কমিশন সচিবালয়। কমিশনের সকল কর্মকর্তা/কর্মচারীবৃন্দ  উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে পিএসসির চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ সাদিক বলেন, “আমরা সবাই আমাদের সবার ওপর অর্পিত দায়িত্ব যথাযথভাবে পালনের মাধ্যমে এই শোককে শক্তিতে রূপান্তরিত করে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করতে পারি।”

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের মাতার মৃত্যুতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের শোক প্রকাশ

মরিয়ম বেগম

নিজস্ব প্রতিবেদক : জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান-এর মাতা মরিয়ম বেগম ২০ আগস্ট, ২০১৯ তারিখ দিবাগত রাত ১.১৫ ঘটিকায় বার্ধক্যজনিত কারণে ঢাকায় উত্তর মুগদাস্থ ছেলের বাড়িতে মৃত্যুবরণ করেন (ইন্নালিল্লাহি …………. রাজিঊন)। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯১ বছর। তাঁর মৃত্যুতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ গভীর শোক প্রকাশ করছে এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করছে।

আজ বাদ আসর কুমিল্লার হরিপুরস্থ’ নিজ গ্রামের বাড়িতে মরহুমার নামাজের জানাযা অনুষ্ঠিত হবে। উল্লেখ্য, তিনি সাত ছেলে, এক মেয়ে, নাতি-নাতনীসহ অসংখ্য গুণগ্রহী রেখে গেছেন।

জাতীয় শোকদিবস উপলক্ষে দেশব্যাপী হামদর্দের ২৭০টি চিকিৎসা কেন্দ্রে একযোগে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্পে

নিজস্ব প্রতিবেদক : জাতীয় শোকদিবস উপলক্ষে দেশব্যাপী হামদর্দের ২৭০টি চিকিৎসা কেন্দ্রে একযোগে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্পের ডিজিটাল উদ্বোধন
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও শোকের মাস উপলক্ষে সারা দেশব্যাপী হামদর্দের সকল চিকিৎসা ও বিক্রয়কেন্দ্রে ফ্রি চিকিৎসা ও ওষুধ বিতরণ এবং আলোচনা সভার আয়োজন করেছে হামদর্দ ল্যাবরেটরীজ (ওয়াক্ফ) বাংলাদেশ। হামদর্দ ল্যাবরেটরিজ (ওয়াক্ফ) বাংলাদেশ-এর প্রধান কর্যালয়ে ইউছুফ হারুন ভূঁইয়া মিলনায়তনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে সারা দেশব্যাপী অনলাইনের মাধ্যমে চিকিৎসা ও বিক্রয়কেন্দ্র থেকে ফ্রি চিকিৎসা ও ওষুধ বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন হামদর্দ বোর্ড অব ট্রাস্ট্রিজ-এর চেয়ারম্যান সাবেক সচিব কাজী গোলাম রহমান।

হামদর্দের চিফ মোতাওয়াল্লী ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং হামদর্দ বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশ-এর প্রতিষ্ঠাতা ড. হাকীম মোঃ ইউছুফ হারুন ভূঁইয়া’র সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হামদর্দ বোর্ড অব ট্রাস্ট্রিজ-এর ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা: এ, কে, আজাদ খান, হামদর্দ বোর্ড অব ট্রাস্ট্রিজ-এর সদস্য লে. জেনারেল আবু তৈয়ব মুহাম্মদ জহিরুল আলম (অব.), হামদর্দ বিশ^বিদ্যালয় বাংলাদেশ-এর উপাচার্য্য অধ্যাপক ড. আব্দুল মান্নান।

অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন হামদর্দের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ জামাল উদ্দিন ভূঁইয়া রাসেল, পরিচালক অর্থ হিসাব ও ক্রয় মোঃ আনিসুল হক, পরিচালক হামদর্দ ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ লেঃ কর্ণেল মাহবুবুল আলম চৌধুরী (অব:), পরিচালক প্রটোকল এন্ড লিগ্যাল অ্যাফেয়ার্স এবং তথ্য ও গণসংযোগ (চলতি দায়িত্ব) মেজর ইকবাল মাহমুদ চৌধুরী (অব:), পরিচালক এইচআরডি ডাঃ হাকীম নার্গিস মার্জানসহ হামদর্দের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে কাজী গোলাম রহমান বলেন, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালী স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে আজ জাতি শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছে, পুরো জাতি আজ শোকাবহ। এই শোককে শক্তিতে পরিনত করে তিনি দেশ গড়ার কাজে সকলকে আত্ননিয়োগ করার আহ্বান জানান।

সভাপতির বক্তব্যে ড. হাকীম মোঃ ইউছুফ হারুন ভূঁইয়া বলেন, আজ জাতীয় শোক দিবস, জাতি আজ শ্রদ্ধাভরে দিনটি পালন করছে। বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকবেন আমাদের মাঝে তাঁর কর্ম ও আর্দশের মাধ্যমে। তিনি দেশকে ভালোবেসে দেশের জন্য জীবন দিয়ে গেছেন আমরা তাঁর স্বপ্নের সেই সোনার বাংলা গড়ে তুলব। তিনি আরো বলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাতে সারা বিশ্ব হারিয়েছি এক মহান নেতাকে। আমরা বাঙ্গালিরা হারিয়েছি আমাদের জাতির পিতাকে। পরিশেষে বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে ধারণ করে দেশ সেবায় সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ডা: এ, কে, আজাদ খান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং তাঁর জান্নাত নসিবের জন্য আল্লাহর নিকট প্রার্থনা করেন।

সবশেষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ১৫ আগস্ট-এ তাঁর পরিবারের সকল শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনায় বিশেষ দোয়া পরিচালনা করা হয়।

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রী শ্রদ্ধা নিবেদন করছেন-বাসস

অনলাইন ডেস্ক : জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৬টায় বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের পর কিছুক্ষণ নীরবে দাঁড়িয়ে থাকেন রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী। এরপর রাষ্ট্রীয় সালাম ও গার্ড অব অনার দেওয়া হয় সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে।

রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর পর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শ্রদ্ধা নিবেদনের পর আওয়ামী লীগ সভাপতি হিসেবে দল ও সহযোগী সংগঠনের শীর্ষ নেতাদের নিয়ে দ্বিতীয়বার বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন শেখ হাসিনা। এরপর প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু ভবনের ভেতরে যান এবং সেখানে বেশ কিছুক্ষণ অবস্থান করেন।

এরপর ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট নিহতদের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করে ফাতেহা পাঠ ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।

ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চলে যান বনানীর কবরস্থানে। সোয়া ৭টার দিকে পরিবারের সদস্যদের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন ও দোয়া করেন তিনি।

সকাল সোয়া ৯টার দিকে প্রধানমন্ত্রী হেলিকপ্টারে করে গোপালগঞ্জ জেলার টুঙ্গিপাড়ার উদ্দেশে রওনা হয়েছেন।

সেখানে বঙ্গবন্ধু মাজার প্রাঙ্গণে বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে ফাতেহা পাঠ, পুষ্পস্তবক অর্পণ, সশস্ত্র বাহিনী কর্তৃক গার্ড অব অনার ও মোনাজাতে অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

দুপুরে ঢাকায় ফিরে আসবেন তিনি। বাদ আছর বঙ্গবন্ধু ভবনে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত মিলাদ মাহফিলে যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী।

শুক্রবার বিকেলে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী।

দিবসটি উপলক্ষে সরকারি, আধা সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ভবন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও বেসরকারি ভবনগুলোয় জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা হয়েছে। বিদেশে বাংলাদেশ মিশনগুলোয়ও জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা এবং আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। এছাড়া দেশের সব সরকারি হাসপাতালে দিবসটি উপলক্ষে বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা দেওয়া হচ্ছে।