Breaking News
loading...
Home / আইন আদালত / ছাত্রী ধর্ষণ ও মা-মেয়ে নির্যাতন বগুড়ায় তুফানসহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল

ছাত্রী ধর্ষণ ও মা-মেয়ে নির্যাতন বগুড়ায় তুফানসহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল

ছাত্রী ধর্ষণ ও মা-মেয়ে নির্যাতন বগুড়ায় তুফানসহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল

বগুড়া প্রতিনিধি : বগুড়ার আলোচিত কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণের পর তাকে ও তার মাকে নির্যাতনের পর মাথা ন্যাড়া করে দেওয়ার ঘটনায় দায়ের হওয়া দুটি মামলার তদন্ত শেষে তুফান সরকারসহ তার বাহিনীর ১৩ জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করা হয়েছে। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বগুড়া সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) আবুল কালাম আজাদ মঙ্গলবার বিকেল ৫টায় জেলার অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে তুফান সরকারসহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে দুটি মামলারই চার্জশিট (অভিযোগপত্র) দাখিল করেন। অভিযোগপত্রে ধর্ষণ ও মা-মেয়ে নির্যাতনের ঘটনায় ১৩ জনের সম্পৃক্ততার প্রমাণ পাওয়া গেছে বলে উলে­খ করেছেন তদন্তকারী কর্মকর্তা।

যাদের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করা হয়েছে তারা হচ্ছে বহিষ্কৃত শহর শ্রমিক লীগ নেতা তুফান সরকার, তার স্ত্রী আশা খাতুন, স্ত্রীর বড় বোন বগুড়া পৌরসভার সংরক্ষিত ৪, ৫, ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মার্জিয়া হাসান রুমকি, শাশুড়ি রুমি খাতুন, শ্বশুর জামিলুর রহমান

রুনু, তুফান বাহিনীর সদস্য আতিক, মুন্না, আলী আজম দিপু, রূপম, শিমুল, জিতু ও নর সুন্দর জীবন রবিদাস। এদের মধ্যে শিমুল পলাতক রয়েছে। বাকি সকল আসামিকেই পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। নরসুন্দর জীবন ও তুফানের শ্বশুর রুনু এজাহারভুক্ত আসামি ছিলেন না। তদন্তে তারা জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়ায় তাদেরকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

আসামিদের মধ্যে তুফান বগুড়া জেলে মাদক সেবন করায় তাকে কাশিমপুর কারাগারের হাইসিকিউরিটি সেলে পাঠানো হয়েছে। তার শ্বশুর রুনু একটি মামলায় জামিন পেলেও অপরটিতে জামিন পাননি।
অভিযোগপত্রে উলে­খ করা হয়েছে যে , প্রধান আসামি তুফানের সহযোগী আতিক, দিপু এবং নরসুন্দর জীবন আদালতে মা ও মেয়েকে ন্যাড়া এবং নির্যাতনের কথা স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছেন। এ ছাড়াও তদন্তকারী কর্মকর্তা তুফান, আশা, রুমকি ও রুমি বেগমসহ অন্যদের কয়েকদফা রিমান্ডে নিয়েও স্বীকারোক্তি আদায় করতে পারেননি। তবে ভিকটিম ছাত্রীও আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে । এ ছাড়াও বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক বিভাগের ডাক্তারি পরীক্ষার রিপোর্টে ছাত্রীকে ধর্ষণের প্রমাণ ছাড়াও ঘটনার শিকার শিক্ষার্থীকে নাবালিকা উলে­খ করা হয়েছে।

মামলার অভিযোগপত্রে মোট ১৬ জন সাক্ষী রাখা হয়েছে। এ ছাড়াও আলামত হিসেবে তুফানের প্রাইভেট কার, দুটি ক্ষুর, দুটি কাঁচি, ভিকটিমদের স্বাক্ষর নেওয়া কাউন্সিলর রুমকির পৌরসভার প্যাডের পাতা, নির্যাতনের এসএস পাইপ, মা ও মেয়ের কেটে ফেলা চুল।

তদন্তকারী কর্মকর্তা বগুড়া সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) আবুল কালাম আজাদ চার্জশিট দাখিলের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান , দুটি মামলায় তুফানসহ ১৩ জনের সম্পৃক্ততার প্রমাণ পাওয়া গেছে। যাদের সকলের বিরুদ্ধেই আদালতে চার্জশিট দাখিল করা হয়েছে। পলাতক আসামি শিমুলকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

Loading...
loading...

ভিডিওটি দেখতে নিচে ক্লিক করুন



Loading...

About sylhet24 express

Check Also

চীনকে হারিয়ে পঞ্চম স্থানের লড়াইয়ে বাংলাদেশ

চীনকে হারিয়ে পঞ্চম স্থানের লড়াইয়ে বাংলাদেশ

অনলাইন ডেস্ক : দুর্দান্ত দুটি সেভ করলেন গোলরক্ষক আবু নিপ্পন। শেষে ভুল করলেন না অধিনায়ক রাসেল …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *