loading...
Home / ফিচার / কালের আবর্তে রাণীনগরে বিলুপ্তর পথে ঐতিহ্যবাহী মৃশিল্প

কালের আবর্তে রাণীনগরে বিলুপ্তর পথে ঐতিহ্যবাহী মৃশিল্প

রাণীনগর (নওগাঁ) সংবাদদাতা : নওগাঁর রাণীনগর উপজেলায় কালের আবর্তে ক্রমেই হারিয়ে যাচ্ছে শত বছরের ঐতিহ্যবাহী মৃিশল্প। বহুমুখী সমস্যা আর পৃষ্ঠপোষকতার অভাবে আজ সংকটের মুখে এ মৃিশল্প। তাই বিলুপ্তির পথে শত বছরের এই ঐতিহ্যবাহী মৃিশল্পটি।

এক সময় উপজেলার খট্টেশ্বর, গহেলাপুর, আতাইকুলা, কাশিমপুর, নিজামপুর, ভান্ডারাসহ বিভিন্ন গ্রামের মৃিশল্প খুবই বিখ্যাত ছিল। বিজ্ঞানের জয়যাত্রা, প্রযুক্তির উন্নয়ন ও নতুন নতুন শিল্প সামগ্রীর প্রসারের কারণে এবং প্রয়োজনীয় পৃষ্ঠপোষকতা ও অনুকূল বাজারের অভাবে এ মৃশিল্প আজ বিলুপ্তির পথে।

কালের আবর্তে রাণীনগরে বিলুপ্তর পথে ঐতিহ্যবাহী মৃশিল্প

সরেজমিনে বিভিন্ন এলাকা ঘুরে জানা যায়, বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলের মতো রাণীনগর উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে নিয়োজিত মৃিশল্পীদের অধিকাংশ পাল সম্প্রদায়ের। প্রচীন কাল থেকে ধর্মীয় এবং আর্থ সামাজিক কারণে মৃিশল্পে শ্রেণিভুক্ত সমাজের মধ্যে সীমাবদ্ধ ছিল। পরবর্তী সময়ে অন্য সম্প্রদায়ের লোকরা মৃিশল্পকে পেশা হিসেবে গ্রহণ করে। বর্তমান বাজারে এখন আর আগের মতো মাটির জিনিস পত্রের চাহিদা না থাকায় এর স্থান দখল করে নিয়েছে দস্তা, অ্যালুমিনিয়াম ও পল্টাস্টিকের তৈরি জিনিসপত্র। ফলে বিক্রেতারা মাটির জিনিসপত্র আগের মতো আগ্রহের সাথে নিচ্ছেন না। তাদের চাহিদা নির্ভর করে ক্রেতাদের ওপর। কিন্তু উপজেলার অজ পাড়াগাঁ পর্যন্ত এখন আর মাটির হাড়ি পাতিল তেমনটা চোখে পড়ে না। সে কারণে অনেক পুরোনো শিল্পীরাও পেশা বদল করতে বাধ্য হচ্ছে। যুগের পরিবর্তনের সাথে সাথে মাটির জিনিসপত্র তার পুরোনো ঐতিহ্য হারিয়ে ফেলেছে। ফলে এ পেশায় যারা জড়িত এবং যাদের জীবিকার একমাত্র অবলম্বন মৃিশল্প তাদের জীবনযাপন একেবারেই কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। দুঃখ কষ্টের মাঝে দিন কাটলেও রাণীনগর উপজেলার মৃিশল্পীরা এখনও স্বপ্ন দেখেন। কোনো একদিন আবারও কদর বাড়বে মাটির পণ্যের। সেদিন হয়তো আবারো তাদের পরিবারে ফিরে আসবে সুখ-শান্তি। আর সেই সুদিনের অপেক্ষায় আজও দিন-রাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন মৃশিল্পীরা।

এ বিষয়ে উপজেলার খট্টেশ্বর পালপাড়া গ্রামের শ্রী: সংকর চন্দ্র ও শ্রী: অখিল চন্দ্র পাল বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে নদী-খাল ভরাট হয়ে যাওয়ায় এখন মাটি সংগ্রহে অনেক খরচ করতে হয় তাদের। এছাড়াও জ্বালানির মূল্য বেড়ে যাওয়ায় উর্দপাদন ও বিক্রির সঙ্গে মিল না থাকায় প্রতিনিয়ত লোকসান গুণতে হচ্ছে তাদের আমাদের।

এ ব্যাপারে রাণীনগর শের-এ বাংলা ডিগ্রি মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ মো: মোফাখ্খার হোসেন খান বলেন, ‘মৃিশল্প আমাদের শত বছরের ঐতিহ্যবাহী একটি শিল্প। বাপ-দাদার এই পেশা ছেড়ে অন্য পেশার দিকে চলে যাচ্ছে আমাদের উপজেলার অনেকে মৃশিল্পীরা। আধুনিক প্রশিক্ষনের মাধ্যমে শিল্পকর্মে প্রশিক্ষিত করে মৃিশল্পের সময়োপযোগী জিনিসপত্র তৈরিতে এবং বিদেশে এ পন্যের বাজার সৃষ্টিতে জরুরি পদক্ষেপ অতী প্রয়োজন বলে জানান।

Loading...
loading...

ভিডিওটি দেখতে নিচে ক্লিক করুন



Loading...

About sylhet24 express

Check Also

দিল্লির ভালোবাসায়ও বিষাক্ত ধোঁয়া!

দিল্লির ভালোবাসায়ও বিষাক্ত ধোঁয়া!

  সিলেট টুয়েন্টিফোর এক্সপ্রেস ডেস্ক : ইন্ডিয়া গেটের সামনে দাঁড়িয়ে একে অপরকে জড়িয়ে ছবি তোলা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *