loading...
Home / মানবাধিকার / আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছে নারী ও শিশু ধর্ষণ” সাত মাসে ধর্ষণের শিকার ৫২৬ জন গণধর্ষণ ১১৯

আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছে নারী ও শিশু ধর্ষণ” সাত মাসে ধর্ষণের শিকার ৫২৬ জন গণধর্ষণ ১১৯

সরিষাবাড়ীতে ৫ বছরের শিশু ধর্ষণ: ধর্ষক গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক : সামাজিক অস্থিরতা, অপসংস্কৃতি, আকাশ সংস্কৃতি, অশ্লীলতা, ঘুষ, দুর্নীতিসহ নানা কারণে দিনে দিনে সামাজিক অবক্ষয় চরম আকার ধারণ করেছে। পাশাপাশি অশ্লীলতার আগ্রাসনে মানুষের নৈতিক মূল্যবোধের অভাব ও সামাজিক অবক্ষয়ের কারণে দেশে আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছে ধর্ষণের মতো ঘটনা । দেশে গত সাত মাসে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন ১১৯ জন। বাংলাদেশ শিশু অধিকার ফোরামের তথ্য অনুযায়ী, গত ২০১২ সালে ৮৬ জন, ২০১৩ সালে ১৭৯ জন, ২০১৪ সালে ১৯৯ জন, ২০১৫ সালে ৫২১ জন শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এ চিত্র থেকেই স্পষ্ট প্রতিবছরই নারী ও শিশু ধর্ষণের ঘটনা বেড়েই চলেছে। সংস্থাটির বার্ষিক প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০১৬ সালে ৬৮৬টি ধর্ষণ, গণধর্ষণ, ইভ টিজিং, যৌন হয়রানিসহ বিভিন্ন ধরনের যৌন নির্যাতন ও নিপীড়নের শিকার হয়েছে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, ধর্ষণের ঘটনা বৃদ্ধির পেছনে রয়েছে চরম নৈতিক অবক্ষয়, আকাশ সংস্কৃতি, মাদকের বিস্তার, বিচার প্রক্রিয়ায় প্রতিবন্ধকতা ও বিচারের দীর্ঘসূত্রিতা।

সম্প্রতি রাজধানীর উত্তরখানে এক কিশোরীকে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটে। রাত ৮টার দিকে ওই কিশোরী কালীগঞ্জ বোনের বাড়ি থেকে উত্তরখানের নিজ বাসায় ফিরছিলেন। তখন তার পূর্বপরিচিত অপু নামে একজন ফোন করে তাকে একটি মার্কেটের সামনে আসতে বলেন। ওই কিশোরী মার্কেটের সামনে গেলে অপু কয়েকজনের যোগসাজশে পাশের নির্মাণাধীন একটি ভবনে নিয়ে যায়। পরে এরা সবাই মিলে রাত ৯টা থেকে আড়াইটা পর্যন্ত ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করে। তারপর মেয়েটি রাস্তায় এসে চিৎকার করলে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে।”

বিভিন্ন মাজারে ঘুরে ঘুরে গান গেয়ে বেড়ান এক বাউলশিল্পী। মাসখানেক আগে তার সঙ্গে পরিচয় হয় আরেক নারী শিল্পীর। এই সূত্র ধরে গত বুধবার রাতে সাভারের আশুলিয়ার আউকপাড়ায় একটি অনুষ্ঠানে গান গাওয়ার ডাক পান তিনি। ওই দিন সন্ধ্যায় নারায়ণগঞ্জ থেকে আশুলিয়ায় আসেন ওই শিল্পী। পূর্বপরিচিত শিল্পীর দেওয়া ঠিকানায় যাওয়ার পর তাকে একটি ঘরে আটকে রেখে কয়েকজন ধর্ষণ করেন।

গত ৫ আগস্ট ফেনীর দাগনভঁ‚ইয়া বাচ্চাকে পোলিও খাওয়াতে আনার সময় পথিমধ্যে তাকে আটক করে একটি খালি বাড়িতে নিয়ে ধর্ষণ করে এক বখাটে।”
বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের এক পরিসংখ্যানে দেখা যায়, এ বছরের জানুয়ারি থেকে জুলাই পর্যন্ত দেশে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে ১১৯টি। জানুয়ারিতে ১৪টি, ফেব্রুয়ারিতে ১৩টি, মার্চে ১৪টি, এপ্রিলে ১৪টি, মে মাসে ২৫টি, জুন মাসে ২৪টি এবং জুলাই মাসে ১৫টি গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। গণধর্ষণ তো আছেই, এর সঙ্গে ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে ধর্ষণের ঘটনাও। এ বছরের জানুয়ারি থেকে জুলাই পর্যন্ত এই সাত মাসে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে ৫২৬টি। এর মধ্যে জুলাই মাসেই ঘটেছে ৯৭টি ধর্ষণের ঘটনা। আর ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে ৪১ জনকে।

এ ব্যাপারে উদ্বেগ প্রকাশ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক জিনাত হুদা বলেন, আকাশ সংস্কৃতির কারণে উগ্র পুরুষতান্ত্রিক মনোভাব তৈরি হচ্ছে। আর এসব সিরিয়ালে কখনো স্বাভাবিক পারিবারিক পরিবেশ কিংবা আদর্শগত ভিত্তি থাকে না। সমাজের নিন্মবিত্ত থেকে উচ্চবিত্ত পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়ছে এই নোংরা মনোভাব। ধর্ষণের ঘটনা কেন ঘটছে এর কারণ অনুসন্ধান করতে গবেষণা প্রয়োজন। এর পাশাপাশি এসব ঘটনার উৎস খুঁজে বের করতে হবে ও প্রয়োজনে কাউন্সিলিংয়ের ব্যবস্থা করতে হবে।

আইনজীবী ও মানবাধিকারকর্মীরা বলছেন, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির ভারসাম্যহীনতা, আইনের সঠিক প্রয়োগ না হওয়া এবং অভিভাবকের অসচেতনতা শিশু ধর্ষণ বৃদ্ধির বড় কারণ। প্রতিরোধে দরকার দ্রুত বিচার এবং অপরাধীর শাস্তি নিশ্চিত করা।

Loading...
loading...

ভিডিওটি দেখতে নিচে ক্লিক করুন



Loading...

About sylhet24 express

Check Also

বৈঠকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী ও ক্রিসতোস্ত স্তিলিয়ানিদেস

রোহিঙ্গা ইস্যু বাংলাদেশের পাশে থাকবে ইইউ

নিজস্ব প্রতিবেদক : রোহিঙ্গারা বাংলাদেশের জন্য বিশাল সংকটে পরিণত হয়েছে। বাংলাদেশ ও মিয়ানমার দুই দেশকে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *