loading...
Home / জাতীয় / উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা বাড়ছে অনিশ্চয়তা হজ যাত্রীদের চোখে শুধুই কান্না চরম অনিশ্চিয়তায় ৭৪ হাজার হজ যাত্রী

উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা বাড়ছে অনিশ্চয়তা হজ যাত্রীদের চোখে শুধুই কান্না চরম অনিশ্চিয়তায় ৭৪ হাজার হজ যাত্রী

 

উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা বাড়ছে অনিশ্চয়তা হজ যাত্রীদের চোখে শুধুই কান্না  চরম অনিশ্চিয়তায় ৭৪  হাজার হজ যাত্রী

মেহ্দী আজাদ মাসুম : হজ এজেন্সি, মধ্যস্বত্বভোগীর প্রতারণা, হজ অফিসের কর্মকর্তাদের অবহেলা, বাংলাদেশ বিমান ও সৌদি এয়ারলাইন্সের একের পর এক ফ্লাইট বাতিলের সঙ্গে ই-ভিসার সমস্যা যুক্ত হওয়ায় চরম অনিশ্চিয়তায় পড়েছেন হজ যাত্রীরা। ৩৪,৯৪১ হজ যাত্রীর এখনও ভিসা হয়নি। সময় আছে আর ৬ দিন। হজের শেষ ফ্লাইট ঢাকা ছেড়ে যাবে ২৬ আগস্ট। ১,২৭,১৯৮ হজ যাত্রীর মধ্যে গতকাল পর্যন্ত সৌদি পৌঁছাতে পেরেছেন ৫৩,১৭৩ জন। আর চরম অনিশ্চয়তায় প্রথমবারের মতো দুঃসময় পার করছেন ৭৪,০২৫ জন।

ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের জীবনে হজ পালন মানে অনেক বড় একটা স্বপ্নপূরণ। এ স্বপ্ন পালনের জন্য বছরের পর বছর অনেকেই অপেক্ষায় থাকেন। সীমিত আয়ের মানুষরা একটু একটু করে টাকা সঞ্চয় করেন স্বপ্ন পূরণের লক্ষে। অনেকে আবার বাড়তি ভিটেমাটি বিক্রি করেও হজ পালনের জন্য প্রস্তুতি নিতে থাকেন।

ই-ভিসা জটিলতা, ফ্লাইট বিপর্যয়, ধর্ম মন্ত্রণালয়ের উদাসীনতা, মধ্যস্বত্বভোগীদের প্রতারণা এবং এক শ্রেণির মুনাফালোভী হজ এজেন্টদের পাকচক্রে পড়ে হজ যাত্রীরা স্মরণকালের ভয়াবহ এক দুঃসময় পার করছেন। এ রিপোর্ট লেখার সময় পর্যন্ত ৩৪,৯৪১ হজ যাত্রী ভিসা পাননি। ১৭ আগস্টের পর আর ভিসা দেবে না বলে জানিয়েছে সৌদি সরকার। সে হিসাবে বাকি আর মাত্র ৬ দিন। এর পর সৌদির ই-ভিসা বন্ধ হয়ে যাবে। হজের শেষ ফ্লাইট নির্ধারিত রয়েছে ২৬ আগস্ট। এর পর আর কোনো হজ ফ্লাইটও নেই। গতকাল পর্যন্ত ১,২৭,১৯৮ হজ যাত্রীর মধ্যে সৌদী পৌঁছাতে পেরেছেন ৫৩,১৭৩ জন। আর চরম অনিশ্চয়তায় দুঃসময় পার করছেন ৭৪,০২৫ হজ যাত্রী।
সৌদি সরকার নতুন ভিসা কাঠামো কার্যকর করে ২ অক্টোবর (১ মহররম)। নতুন নিয়মাবলীতে পুনরায় হজে গেলে দুই হাজার রিয়াল ফি দিতে হবে বলে উলে­খ করা হয়। তবে গত ফেব্রুয়ারিতে সরকারের জারি করা বিশাল হজ প্যাকেজের কোথাও এর উলে­খ ছিল না। এরই পরিণতি ২৫ কোটি টাকা গচ্চা দিতে হচ্ছে ৫ হাজারের বেশি হজ যাত্রীকে। সংশ্লিষ্ট অনেকেই এ জন্য ধর্ম মন্ত্রণালয়কে দায়ী করেছেন। হজ এজেন্সি মালিকদের সংগঠন হাবের নেতারাও বলছেন, ধর্ম মন্ত্রণালয়ের গাফিলতির কারণে এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। অতিরিক্ত ফির কথা হজ প্যাকেজে উলে­খ থাকলে ভোগান্তি হতো না।

উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা বাড়ছে অনিশ্চয়তা হজ যাত্রীদের চোখে শুধুই কান্না  চরম অনিশ্চিয়তায় ৭৪  হাজার হজ যাত্রী

মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র জানায়, এ বছর সরকারি খরচে হজে পাঠানো অনেককে নিয়ে সব মহলে তীব্র সমালোচনা চলছে। সরকারি খরচে এবার হজে যাচ্ছেন মন্ত্রীর আত্মীয়-স্বজনরা। তালিকায় ধর্মমন্ত্রী মতিউর রহমানের নির্বাচনী এলাকা ময়মনসিংহের ৩৫ জন লোক হজ চিকিৎসকদের সহায়তা দলে অন্তর্ভুক্ত হয়েছেন, যারা চিকিৎসক নন। ধর্ম মন্ত্রণালয়ের গঠন করা ১৭১ জনের হজ চিকিৎসকদের সহায়তাকারী তালিকায় আছেন গাড়িচালক, নিরাপত্তা প্রহরী, গানম্যান ও মসজিদের ইমাম প্রমুখ। তালিকায় থাকা কারো কারো নামের পাশে আবার পূর্ণাঙ্গ ঠিকানাও নেই।

অভিযোগ রয়েছে, হজ নিয়ে একটি প্রভাবশালী চক্র গড়ে তুলেছে শক্তিশালী সিন্ডিকেট। তাদের অনুগত হজ এজেন্টদের কাছে নিবন্ধিত হজ যাত্রীরা আছেন কিছুটা স্বস্তিতে। অন্য হজ যাত্রীদের অবস্থা করুণ।

এ দিকে গতকাল পর্যন্ত ধর্ম মন্ত্রণালয়ে ২৮টি এজেন্সি ৫ হাজার ১১৭ জন হজযাত্রীর ভিসার আবেদনই জমা দেয়নি। প্রায় প্রতিদিনই যাত্রীর অভাবে বাতিল হচ্ছে শিডিউল ফ্লাইট। ই-ভিসা জটিলতার কারণে টিকিট কনফার্ম থাকার পরও যাত্রীরা বিমানে উঠতে পারছেন না। ই-ভিসার প্রিন্ট নিতে গিয়ে সার্ভার ও যান্ত্রিক ত্র“টিতে আটকা পড়ছেন অনেক হজ যাত্রী। বিমানমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেছেন, দ্রুত জটিলতা নিরসন না হলে কমপক্ষে ৩০ হাজার যাত্রীর হজ করা নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিতে পারে। আর হজ এজেন্টদের সংগঠন হাব নেতারা কেউ কেউ বলছেন, ১০ হাজার হজযাত্রীর হজযাত্রা অনিশ্চিত হতে পারে।

বাংলাদেশ থেকে আগামী ১৫ দিনে ৭৪,০২৫ হজ যাত্রীকে পরিবহন করতে হবে বিমান ও সাউদিয়া এয়ারলাইন্সকে। মাত্র ৬ দিনে ৩৪,৯৪১ জন যাত্রীর ই-ভিসা ও আনুষঙ্গিক কাজ সম্পন্ন করা অনিশ্চিত। অনিশ্চিত ৭৪,০২৫ জনকে বিমান ও সৌদিয়া এয়ারলাইন্সে পারাপর। তবে শেষমেষ যদি এই হজ যাত্রীরা না যেতে পারেন তাহলে বিরূপ পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে বলে অনেকেই মনে করছেন।

ধর্ম মন্ত্রণালয় বলছে, সৌদি আরব ই-ভিসা ব্যবস্থা চালু করায় এ সমস্যা তৈরি হয়েছে। এজেন্সিগুলো সিন্ডিকেটের মাধ্যমে সংকট তৈরি করছে। ছয় শতাধিক হজ এজেন্সির মধ্যে মাত্র শ’খানেক এজেন্সিকে বাংলাদেশ বিমান টিকিট দিয়েছে। এগুলোর মধ্যে ৩০টি এজেন্সির সিন্ডিকেট সবচেয়ে বেশি টিকিট পেয়েছে। যারা পরে অতিরিক্ত দামে ছোট এজেন্সিগুলোর কাছে সেগুলো বিক্রি করছে। টিকিট নিয়ে এজেন্সিগুলোর মধ্যে দরকষাকষির কারণেও অনেক যাত্রী বিমানের টিকিট পাচ্ছেন না। আশকোনা হজক্যাম্পে দিনের পর দিন বসে থাকতে হচ্ছে তাদের। আর কোনো কোনো এজেন্সি অভিযোগ করছে, সিন্ডিকেট করেছে রাঘব বোয়ালরা।

উদ্ভূত পরিস্থিতি সম্পর্কে হজ অফিসের পরিচালক সাইফুল ইসলাম বলেন, বিমানের স্লট বরাদ্দ পাওয়া গেলে সব সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। হজ নিয়ে সুন্দর ব্যবস্থাপনা নেওয়ার পরও যাদের জন্য জটিলতা তৈরি হয়েছে তাদের চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Loading...
loading...

ভিডিওটি দেখতে নিচে ক্লিক করুন



Loading...

About sylhet24 express

Check Also

৩৬তম বিসিএসের ফল প্রকাশ, ক্যাডার ২৩২৩

৩৬তম বিসিএসের ফল প্রকাশ, ক্যাডার ২৩২৩

অনলাইন ডেস্ক : ৩৬তম বিসিএসের চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করেছে সরকারি কর্মকমিশন (পিএসসি)। আজ মঙ্গলবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *