loading...
Home / সমগ্র বাংলাদেশ / ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে তীব্র যানজট

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে তীব্র যানজট

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে তীব্র যানজট
ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে তীব্র যানজট

গাজীপুর প্রতিনিধি : ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের গাজীপুরের কালিয়াকৈরের চন্দ্রা ত্রিমোড় এলাকা থেকে গাজীপুর মহানগরীর কোনাবাড়ি, চন্দ্রা-নবীনগর সড়কের চন্দ্রা ত্রিমোড় থেকে বাড়ইপাড়া এবং টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার গোড়াই পর্যন্ত মহাসড়কের উভয় পাশে দীর্ঘ প্রায় ৩০ কিলোমিটার যানজট ছাড়িয়ে গেছে। ফলে মহাসড়কে আটকা পড়ে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে ওই মহাসড়ক দিয়ে চলাচলরত বিভিন্ন যাত্রীবাহি বাস ও পন্যবাহী যানবাহনের চালক ও সাধারণ যাত্রীর। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর থেকেই মহাসড়কে যান চলাচল বৃদ্ধি পায়। একপর্যায় তা শুক্রবার ভোর থেকে চন্দ্রাসহ এর আশপাশের এলাকায় তীব্র যানজটের আকার ধারণ করে।

জানাযায়, আসন্ন ঈদকে সামনে রেখে একদিকে বিভিন্ন পন্যবাহী যানবাহনের অতিরিক্ত চাঁপ এর মধ্যে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টার পর থেকে মুষলধারে বৃষ্টি শুরু হয়। মহাসড়কে খানা খন্দক ও টানা বৃষ্টির কারণে চালকরা যানবাহনের গতি কমিয়ে দেন। ফলে যানবাহনের স্বাভাবিক চলাচলে বিঘœ ঘটে এবং যানজটের সৃষ্টি হয়। যানজট এক পর্যায় মহাসড়কের চন্দ্রা থেকে মির্জাপুরের গোড়াই অন্যদিকে গাজীপুর মহানগরের ভোগরা বাইপাস পর্যন্ত প্রায় ৩০ কিলোমিটার এলাকায় স্থায়ী হয়।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকেই ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে এ যানজটের চিত্র দেখা গেছে। তবে যানজট নিয়ন্ত্রনে মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে ডাইভারশন করে যানজট স্বাভাবিক রাখতে হাইওয়ে পুলিশ আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছে।

এদিকে, গাজীপুরের ভোগড়া বাইপাস থেকে টাঙ্গাইলের এলঙ্গা পর্যন্ত ফোরলেনের উন্নিতকরণের কাজ অব্যাহত রয়েছে। সেই সাথে গাজীপুর অংশে ফোরলেনের কাজ শুরু হয়েছে। ফলে ওই মহাসড়ক দিয়ে ধীর গতিতে যানবাহন চলাচল করছে। যার কারণে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে।

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ঘুরে আরো দেখা গেছে, এ মহাসড়কটিতে পন্যবাহী ট্রাক আগের তুলনায় অধিক লক্ষ্য করা গেছে। যানজটের কারণে পথচারীদেরকে পায়ে হেঁটে গন্তব্যস্থলে যেতে দেখা গেছে। মহাসড়কের উভয় পাশে কাঁদা পানির সৃষ্টি হওয়ায় এক উদ্ভুত পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।

কথা হয় যানজটে আটকে থাকা ট্রাকচালক মো. শাহিন আলম এর সাথে। তিনি জানান, ভোর রাত থেকেই যানজটে পড়ে আছি। রাত ৫টায় ভোগড়া বাইপাস থেকে যানজটে পড়েছি, সকাল ১০টার দিকে চন্দ্রা পৌঁছেছি। ৪০/৫০ মিনিটের রাস্তা আসতে আমার সময় লেগেছে ৫ ঘন্টা। যানজটে ভয়াবহ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।’

সাহেব এন্টার প্রাইজের চালক মো. মোহাম্মদ আলী জানান, যানজটে সঠিক সময়ে গন্তব্যে পৌঁছতে পারবো না বলে মনে হয়। মহাসড়কে যানবাহনের প্রচুর চাপ এতে করে আমাদের আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়তে হবে।
কথা হয় যানজটে আটকে থাকা স্টারলিট পরিবহনের বাস চালক মো. জিয়ার সাথে। তিনি জানান, রাত থেকেই যানজটে আটকা পড়ে আছি। যেখানে ১ ঘন্টা যেতে সময় লাগতো এখন সেখানে ৫/৬ ঘন্টা পার হয়ে গেলেও যানজটের কারণে গন্তব্যে পৌঁছতে অনেক সময় লাগছে। আর এতে করে বাস মালিকসহ সবাই আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। তিনি অভিযোগ করে বলেন, সড়কে হাইওয়ে পুলিশের পক্ষ থেকে তেমন তোড়জোড় লক্ষ করা যায়নি। যানজটে জীবন শেষ

কোনাবাড়ী (সালনা) হাইওয়ে থানার (ওসি) মো. কাজী হোসেন সরকার জানান, ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফোরলেনে উন্নতিকরণের কাজ চলছে। সড়কে খোড়াখুড়ির কাজ চলছে। এদিকে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টার পর থেকে মুষলধারে বৃষ্টি ও মহাসড়কে খানা খন্দ যার কারণে চালকরা যানবাহনের গতি কমিয়ে দেন। ফলে যানবাহনের স্বাভাবিক চলাচলে বিঘœ ঘটে এবং যানজটের তীব্রতা বেড়েছে। এছাড়া ফিডার সড়ক থেকে যানবাহন মহাসড়কে উঠায় যানজট আরো জটিল আকার ধারণ করেছে।

তবে যানজট নিয়ন্ত্রনে মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে ডাইভারশন করে যানজট স্বাভাবিক রাখতে হাইওয়ে পুলিশ আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছে বলেও জানান তিনি।

loading...

About sylhet24 express

Check Also

দক্ষিণ সুরমা থানায় নিরাপত্তা চেয়ে মুক্তিযোদ্ধা সন্তানের জিডি

দক্ষিণ সুরমা থানায় নিরাপত্তা চেয়ে মুক্তিযোদ্ধা সন্তানের জিডি

সিলেট অফিস : ভবিষ্যত আইনী নিরাপত্তা চেয়ে চাঁদাবাজ টিপুর বিরুদ্ধে জিডি করেছেন একজন মুক্তিযোদ্ধা সন্তান। দক্ষিণ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *