Breaking News
loading...
Home / জাতীয় / যানবাহন চলাচলে শৃঙ্খলা নেই রাজধানীতে যানজটের তীব্র আকার

যানবাহন চলাচলে শৃঙ্খলা নেই রাজধানীতে যানজটের তীব্র আকার

যানবাহন চলাচলে শৃঙ্খলা নেই রাজধানীতে যানজটের তীব্র আকার
যানবাহন চলাচলে শৃঙ্খলা নেই রাজধানীতে যানজটের তীব্র আকার

রতন বালো : যানজটে নগরবাসীর দুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করেছে। যানবাহন চলাচলে নেই শৃঙ্খলা। মন্ত্রী ও মেয়রের নির্দেশ কাজে আসছে না। শৃঙ্খলা রক্ষায় ট্রাফিক বিভাগ পুরোপুরি ব্যর্থ। ফলে পাল­া দিয়ে বাড়ছে যানবাহন। নগরীর সব রাস্তায় সব ধরণের যানবাহনই নিয়ম অমান্য করে চলায় তৈরি হচ্ছে বিশৃঙ্খলা।

রাজধানীতে দুই সিটি করপোরেশনের ছয়টি সুবিধাজনক পার্কিংয়ের স্থান রয়েছে। এর মধ্যে মতিঝিল ও দিলকুশায় রয়েছে দুটি। বাকি চারটি হলো- শিশুপার্ক সংলগ্ন কার পার্ক, মোহাম্মদপুর টাউনহল সংলগ্ন কার পার্ক, নিউ মার্কেট কাচাবাজার সংলগ্ন কার পার্ক, মোহাম্মদপুর নতুন বাজার সংলগ্ন কার পার্ক। এ পার্কিংয়ের স্থানগুলোতে সর্বোচ্চ দেড় হাজার পর্যন্ত গাড়ি পার্কিংয়ের ব্যবস্থা রয়েছে। কিন্তু এসব পার্কিংয়ের স্থানে গাড়ি পার্কিং করার ব্যাপারে চালকদের সব সময় অনীহা লক্ষ্য করা যায়। সবমিলিয়ে রাজধানীতে যানজট তীব্র আকার ধারণ করছে।

বেপরোয়া যানবাহন চলাচল ও পার্কিং, রাস্তা আটকে বাসের যাত্রী ওঠা-নামাসহ বিভিন্ন কারণে বাড়ছে যানজট। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ঝুঁকি মুক্ত চলাচল নিশ্চিত করতে শৃঙ্খলা ফেরাতেই হবে সড়কে। বর্তমানে রাজধানীতে ৯২টি কোম্পানির প্রায় সাড়ে তিন হাজার বাস চলছে। চলমান বেশির ভাগ বাসেরই ফিটনেস নেই। দরজা-জানালা ভাঙা, বসার সিট ছেঁড়া ও সামান্য বৃষ্টিতেই বাসের ভিতর পানি পড়ে।

জানা গেছে, গণপরিবহনের এ সঙ্কটকে পুঁজি করে বাস-মিনিবাসের মালিকরা দেদার যাত্রীদের পকেট কেটে চলেছেন। সিটিং সার্ভিসের নামে বাড়তি ভাড়া আর প্রতারণার ফাঁদ পথে পথে। অথচ গত এপ্রিলে পরিবহন মালিকদের একটি অংশ সিটিং সার্ভিস বন্ধ করতে হঠাৎ উদ্যোগী হলে অন্য অংশ কৃত্রিম সঙ্কট তৈরি করে ঢাকা অচল করে দেয়।

তবে সিটিং সার্ভিস বিষয়ে সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)’র পক্ষ থেকে কমিটি গঠন করা হলেও এ নিয়ে কোনো তৎপরতা নেই। গত রমজান ঈদের পরে বন্ধ হয়ে গেছে বিআরটিএর মোবাইল কোর্টে কার্যক্রম। তাই ফ্রি স্টাইলে চলছে সিএনজি চালিত অটোরিকশা।

এদিকে সারাদেশে বিআরটিএ অনুমোদিত ড্রাইভিং প্রশিক্ষক রয়েছেন মাত্র ১৪২ জন। দেশে রেজিস্ট্রেশনকৃত ড্রাইভিং প্রশিক্ষণ স্কুলের সংখ্যা মাত্র ৯৮। অনুমোদিত ড্রাইভিং প্রশিক্ষকদের একটা বড় অংশ কোনো কাজ করেন না। ট্রেনিং সেন্টারগুলোতেও প্রতিষ্ঠানের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। তাই রাতারাতি অষ্টম শ্রেণি শিক্ষাগত যোগ্যতা সম্পন্ন দক্ষ চালক তৈরি নেহাৎ আকাশকুসুম কল্পনা

পরিবহন মালিকরা বলছেন, তীব্র যানজট, ভাঙাচোরা রাস্তা, কম সুদে ব্যাংকঋণ না পাওয়া এবং শুল্ক সুবিধা না পাওয়ায় তারা নতুন গাড়ি নামাতে পারছেন না।
সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগে শিকার হন রাজধানীর বাস যাত্রীরা। সঠিকভাবে ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ না থাকায় বিশৃঙ্খলভাবে রাস্তায় যানবাহন চলাচল করছে। যাত্রাবাহী বাসগুলো যত্রতত্র রাস্তার ওপরে থামিয়ে যাত্রী ওঠা নামা করছে। এমনকি গুরুত্বপূর্ণ সড়কের পাশের অনেক বহুতল ভবনে আগন্তুকের গাড়ি পার্কিংয়ের পর্যাপ্ত সুবিধা নেই। বিশৃঙ্খলভাবে যানবাহন চলাচল ও ভবনে কার পার্কিং না থাকায় কোনোভাবেই রাজধানীর যানজট নিয়ন্ত্রণে আসছে না।

ঢাকা সিটি করপোরেশনের দুই মেয়রের নির্বাচনি ইশতিহারেও রাস্তার ওপর অবৈধ পার্কিং বন্ধে পদক্ষেপ নেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু এখন পর্যন্ত এটি বাস্তবায়নে তেমন কোনো তৎপরতা নেই। আর এ সুযোগে বরাবরের মতোই এখনো যে যেভাবে পারছে সড়কে গাড়ি পার্কিং করছে।

পরিকল্পিত পার্কিং ব্যবস্থা গড়ে না ওঠায় ব্যস্ত সময়েও রাজধানীর বিভিন্ন অফিস, মার্কেট বা বিপণি বিতানের সামনের রাস্তায় যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং করে হচ্ছে। সিটি করপোরেশনে ও রাজউক কর্তৃপক্ষের এ ব্যাপারে বার বার হুঁশিয়ারি বা অনুরোধেও কিছুতেই কমছে না এ অবৈধ পার্কিং ব্যবস্থা। নগরীর বিভিন্ন ভবন ও মার্কেটগুলোতে কার পার্কিংয়ের জায়গায় ব্যবহার হচ্ছে বাণিজ্যিকসহ অন্য কাজে। ফলে অফিস, মার্কেট বা বিপণি বিতানের সামনের রাস্তাই যেন হয়ে উঠেছে গাড়ি রাখার অন্যতম জায়গা।

যানজট নিয়ন্ত্রণে ঢাকা উত্তর করপোরেশনের মেয়র আনিসুল হক, দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সড়কে গাড়ি পার্কিং না করতে সংশ্লিষ্টদের বার বার অনুরোধ করেছেন। এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্যও প্রশাসনকে কঠোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু মেয়র ও মন্ত্রীর এমন নির্দেশের পরেও রাজধানীর সড়কে অবৈধ গাড়ি পার্কিং বন্ধ হচ্ছে না।

সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, মতিঝিল ও দিলকুশা অঞ্চলের সব কয়টি সড়কের ওপর প্রতিদিনই অবৈধভাবে শতশত গাড়ি পার্কিং করে রাখা হয়। দিলকুশার সাধারণ বিমা ভবনে গাড়ি পার্কিংয়ের ব্যবস্থা থাকলেও এ ভবনটির উত্তর, দক্ষিণ ও পূর্ব দিকে রাস্তার ওপরই লাইন করে রাখা হচ্ছে গাড়ি। এখানে পার্কিং করা একটি গাড়ির ড্রাইভার মো.তাজুল ইসলাম জানান, তাকে তার গাড়ির মালিক রাস্তার ওপর গাড়ি পার্ক করে রাখতে বলেছেন। তাই তিনি সেখানে পার্কিং করেছেন। এ অবস্থা শুধু মতিঝিলের দিলকুশাই নয়, রাজধানীর দৈনিক বাংলা, গুলিস্তান, সদরঘাট, নিউমার্কেট, মহাখালি, গুলশান, বনানী, মিরপুর, উত্তরাসহ দুই সিটি করপোরেশনের অধিকাংশ এলাকার সড়কগুলোতে একই অবস্থা বিড়াজ করছে।

সম্প্রতি নগর ভবনে ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কমিটির সভায় সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, রাজধানীতে যেখানে সেখানে গাড়ি পার্কিং করায় পথচারীরা পড়ছেন নানা বিড়ম্বনায়। অন্যদিকে সৃষ্টি হচ্ছে তীব্র যানজট। অথচ পার্কিংয়ের জন্য যে স্থান রয়েছে তা খালি পড়ে আছে। কেউ যাতে যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং না করে সে বিষয়েও প্রশাসনকে কঠোর নির্দেশ দেন তিনি।

এদিকে সড়কের শৃঙ্খলা আনাটাও কষ্টকর হচ্ছে, দুর্ঘটনা বাড়ছে। পরিস্থিতি সামলাতে আইন প্রয়োগে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলছে ট্রাফিক পুলিশ।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে ডিএমপির (ট্রাফিক) এক পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ঢাকার রাস্তায় আমাদের গাড়ির ধারণ ক্ষমতা হচ্ছে তিন লাখ। মোটরসাইকেলসহ রেসখানে আমাদের গাড়ি আছে প্রায় দশ লাখের বেশি। চালকরা ট্রাফিক আইনটা মানতে চায় না। অবৈধ পার্কিং করে রাখেন। আমাদের আইনের প্রয়োগটা যেখানে আমরা প্রতিদিন আগে দুই থেকে আড়াই হাজার প্রসিকিউশন দিতাম।

জানা গেছে, রাজধানীর চারপাশে সংযুক্ত মহাসড়কগুলোতে যানজট আর যাত্রী দুর্ভোগের দৃশ্য দেখা গেছে। যাত্রীদের অভিযোগ, দূরপাল­ার যাত্রায় ২৫০ কিলোমিটার রাস্তার ২০০ কিলোমিটার যেতে সময় লাগে তিন থেকে চার ঘণ্টা। কিন্তু ঢাকার আশপাশের ৫০ কিলোমিটার যেতে অনেক সময় একই পরিমাণ সময় লাগে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আন্তর্জাতিক মানদণ্ড অনুযায়ী প্রতিটি সড়কের মূল রাস্তার অন্তত ৩০ মিটারের মধ্যে কোনো স্থাপনা থাকতে পারবে না।

সড়ক পরিবহন ও যোগাযোগ সচিব এমএএন সিদ্দিক বলেছেন, মহাসড়কের দখল ও অনিয়ম বন্ধের জন্য হাইওয়ে পুলিশ রয়েছে। সিটি করপোরেশনের ভেতরের অংশের জন্য ট্রাফিক পুলিশ দায়িত্ব পালন করছে। সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে সড়ক বিভাগ কাজ করছে বলেও জানান তিনি।

loading...

About sylhet24 express

Check Also

প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার চক্রান্তের খবর নাকচ আমুর

অনলাইন ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যায় জঙ্গিদের একটি চক্রান্ত বানচাল করা হয়েছে বলে যে খবর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *