loading...
Home / সমগ্র বাংলাদেশ / চলন্ত ট্রাকে গণধর্ষণের শিকার কিশোরী গাজীপুর কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে

চলন্ত ট্রাকে গণধর্ষণের শিকার কিশোরী গাজীপুর কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে

গাজীপুর প্রতিনিধি : গাজীপুরের চৌরাস্তা থেকে নারায়ণগঞ্জে যাওয়ার পথে চলন্ত ট্রাকে গণধর্ষণের শিকার কিশোরী এখন গাজীপুরের জাতীয় কিশোরী উন্নয়ন কেন্দ্রে রয়েছে। এছাড়া ওই কিশোরীর শারীরিক অবস্থা এখন ভালো রয়েছে বলে জানিয়েছেন সিদ্ধিরগঞ্জ থানার (পরিদর্শক) অপারেশন মো. নাসির উদ্দিন।

নারায়ণগঞ্জ জেনারেল (ভিক্টোরিয়া) হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক মো. আসাদুজ্জামান মিয়া শুক্রবার দুপুরে জানান, নির্যাতনের শিকার কিশোরীর শাররিক অবস্থা আগের চেয়ে বেশ ভালো আছে। হাসপাতালে আসার পর তাকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। আগামী শনিবার তাকে আবার চিকিৎসকরে পরামর্শ নেওয়া জন্য বলা হয়েছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সিদ্ধিরগঞ্জ থানার (পরিদর্শক) অপারেশন মো. নাসির উদ্দিন জানান, বৃহস্পতিবার বিকেলে নিযার্তনের শিকার কিশোরী নারায়ণগঞ্জ আদালতের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ইসরাত জাহানের খাস কামরায় ২২ ধারায় জবানবন্দি দেয়। জবানবন্দি শেষে মেয়েটিকে তার পালিত বাবা নিজেদের কাছে নিয়ে যাওয়ার জন্য আবেদন করে। কিন্তু মেয়েটি পরিবারের কাছে যেতে অসস্মতি জানিয়ে তাকে নিরাপত্তা হেফাজতে পাঠানোর জন্য আবেদন করে। যার পরিপ্রেক্ষিতে আদালত তাকে নিরাপত্তা হেফাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
পরে কারা কর্তৃপক্ষ গত বৃহস্পতিবার রাতেই তাকে গাজীপুরের কোনাবাড়ীতে জাতীয় কিশোরী উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠিয়ে দেয়।

পরিদর্শক মো. নাসির উদ্দিন আরো জানান, নির্যাতিত কিশোরীটিকে জন্মের ছয় দিন পর দত্তক আনে পরিবারটি। অভাব অনটনের সংসারে বেড়ে ওঠে মেয়েটি। সে কিছুটা মানসিক প্রতিবন্ধি হওয়ার কারনে খুব সহজে রেগে যায়। যে কারণে মায়ের সঙ্গে প্রায়ই অভিমান করে বাড়ি থেকে বের হয়ে যেতো। এর আগে আরও দুই বার সে বাড়ি থেকে বের হয়ে গিয়েছিল। প্রায় দেড় বছর আগে তাকে একটি ছেলের সঙ্গে বিয়ে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু সেই ছেলের সঙ্গেও তার সংসার টিকেনি।

উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে মায়ের সঙ্গে অভিমান করে গাজীপুর সদর উপজেলার পিরোজআলী মনিপুর এলাকার বাড়ি থেকে বের হয়ে ওই কিশোরী চৌরাস্তা এলাকায় আসে। সে রাস্তা হারিয়ে ফেললে চৌরাস্তায় ট্রাক চালক মেহেদী হাসান রানা ও হেলপার সোহান তাকে বাড়ি পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে মালবাহী ট্রাকের ভেতরে তুলে নেয়। পথে এয়ারপোর্ট এলাকায়সহ কয়েকটি স্থানে চালক মেহেদী হাছান ও হেলপার সোহান তাকে ৩ দফায় ৬ বার ধর্ষণ করে। বুধবার সকালে সিদ্ধিরগঞ্জের গোদনাইলের এসিআই এলাকায় ট্রাকের ভেতর মেয়ে কান্নার শব্দ শুনে লোকজন এগিয়ে আসে। এটা টের পেয়ে চালক ও হেলপার ট্রাক ফেলে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে ওই কিশোরীকে উদ্ধার ও ট্রাকটি আটক করে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় নিয়ে আসে। পুলিশ ট্রাক চালক মেহেদী হাসান রানা ও হেলপাড় সোহান ওরফে তুহিনকে গ্রেফতার করেছে। এছাড়া ওই দুই আসামিকে চার দিনের রিমান্ড দিয়েছে আদালত।

Loading...
loading...

ভিডিওটি দেখতে নিচে ক্লিক করুন



Loading...

About sylhet24 express

Check Also

বিএনপির রাজনীতিতে শূন্যতা পূরণ হয়নি হারিছ-ইলিয়াসের

সিলেট অফিস : আবুল হারিছ চৌধুরী ও এম. ইলিয়াস আলী। প্রথমজন উধাও, পরেরজন ‘নিখোঁজ’; দীর্ঘ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *