Breaking News
loading...
Home / জাতীয় / গর্ভপাতে রাজি না হওয়ায় তরুণীকে গণধর্ষণ!

গর্ভপাতে রাজি না হওয়ায় তরুণীকে গণধর্ষণ!

গণধর্ষণ!

অনলাইন ডেস্ক : যশোরের অভয়নগরে গর্ভপাত করাতে রাজি না হওয়ায় এক তরুণীকে গণধর্ষণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় যুবলীগের সাবেক নেতা শেখ সাইফার রহমানসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন (ক্র্যাব) কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এ অভিযোগ করেন ওই তরুণী নিজেই।

তিনি দাবি করেন, বিচার চাওয়ায় তাকে ও তার মাকে হত্যার হুমকি দিচ্ছেন অভিযুক্তরা। আতঙ্কে মাসহ তিনি ঢাকায় পালিয়ে এসেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে ওই তরুণী বলেন, তাদের বাড়ি অভয়নগরের নওয়াপাড়ায়। তার বাবা অনেক আগেই মারা গেছেন। তার মা অন্যের বাসায় কাজ করেন। মাঝে কয়েক বছর পড়ালেখা বন্ধ থাকার পর চলতি বছর তিনি এসএসসি পাস করেছেন।

তরুণীর দাবি, নওয়াপাড়ার জনি সরদারের সঙ্গে ২০১৩ সালে তার প্রেমের সম্পর্ক হয়। নওয়াপাড়ায় একটি আবাসিক হোটেল রয়েছে জনিদের। নাম ‘হোটেল আল সেলিম।’ ২০১৫ সালের ৩০ অক্টোবর তাকে ওই হোটেলে নিয়ে এক মৌলভীর মাধ্যমে কলেমা পড়িয়ে ও কাগজে সই করিয়ে জনি বলে, তাদের বিয়ে হয়ে গেছে। এরপর তারা স্বামী-স্ত্রী হিসেবে থাকা শুরু করেন। বিভিন্ন জায়গায় বেড়াতে গিয়ে এবং ওই হোটেলে তাদের শারীরিক সম্পর্ক হয়।

তরুণী বলেন, সম্প্রতি তিনি অন্তঃস্বত্তা হয়ে পড়েন। এ খবর জুনের শেষ দিকে তিনি জনিকে জানান। ওই সময় জনি তার সঙ্গে বিয়ে অস্বীকার করে গর্ভপাত করানোর জন্য চাপ দেয়।

তরুণীর অভিযোগ, গত ৭ জুলাই অভয়নগর থানা যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শেখ সাইফার রহমান বিষয়টি মিটমাট করার জন্য তাকে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে যান জনির হোটেলে। দোতলার একটি কক্ষে গিয়ে তিনি দেখেন জনি, তার বন্ধু আজিম, সুমন ও রুবেল অবস্থান করছে। গর্ভপাত করানোর জন্য তারা তরুণীকে জোর করে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। তরুণী যেতে না চাইলে জনিসহ পাঁচজনই তাকে ধর্ষণ করে। তরুণী সেখান থেকে বের হয়ে মামলা করতে অভয়নগর থানায় গেলেও পুলিশ মামলা নেয়নি বলে তার অভিযোগ। এরপর ২৫ জুলাই আদালতে গিয়ে সাইফার, জনি, সুমন, রুবেল ও আজিমের বিরুদ্ধে মামলা করেন তিনি।

তরুণী বলেন, অভিযুক্তরা প্রভাবশালী। তারা তার বাসায় গিয়ে হামলা চালিয়েছে, ভাংচুর করেছে। পরে তারা সেখান থেকে পালিয়ে যশোরে আত্মীয়ের বাসায় আশ্রয় নেন। কয়েকদিন আগে ঢাকায় এসে উঠেছেন এক স্বজনের বাসায়। জীবনের ভয়ে মাসহ তিনি পালিয়ে বেড়াচ্ছেন বলে দাবি করেন।

সংবাদ সম্মেলনে তরুণীর সঙ্গে তার মা ও কয়েকজন তরুণ উপস্থিত ছিলেন। ওই তরুণরা তরুণীর প্রতিবেশী বলে জানান। অভিযুক্তরা সবাই ক্ষমতাসীন দলের স্থানীয় নেতাকর্মী বলে জানান তারা। তরুণীর পক্ষে অবস্থান নেওয়ায় একজনের মুদি দোকান বন্ধ করে দিয়েছে তারা। তিনিও আতঙ্কে ঢাকায় চলে এসেছেন।

এদিকে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন অভয়নগর থানা যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শেখ সাইফার রহমান। তিনি বলেন, তরুণীকে তিনি হোটেলে ডেকে নিয়ে যাননি এবং ধর্ষণও করেননি। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ একেবারেই মিথ্যা, ষড়যন্ত্র।

সাইফার বলেন, জনি তার ছেলের বয়সী। জনির সঙ্গে তার যোগাযোগ কখনই ছিল না। এলাকার ছেলে হিসেবে তাকে চেনেন তিনি।

Loading...
loading...

ভিডিওটি দেখতে নিচে ক্লিক করুন



Loading...

About sylhet24 express

Check Also

শুধু আইন দিয়ে নয়, নিজের বিবেককে জাগ্রত রেখে কাজ করতে হবে : ডেপুটি স্পিকার

শুধু আইন দিয়ে নয়, নিজের বিবেককে জাগ্রত রেখে কাজ করতে হবে : ডেপুটি স্পিকার

সংসদ প্রতিবেদক : জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বী মিয়া বলেন, শুধু আইন দিয়ে নয়, …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *