Breaking News
loading...
Home / জাতীয় / বগুড়ায় বর্বরতায় দেশজুড়ে ধিক্কার

বগুড়ায় বর্বরতায় দেশজুড়ে ধিক্কার

বগুড়ায় বর্বরতায় দেশজুড়ে ধিক্কার

মেহ্দী আজাদ মাসুম, ঢাকা ও এনাম আহমেদ বাবু, বগুড়া : বাড়ি থেকে ফিল্মি স্টাইলে ক্যাডার দিয়ে তুলে নিয়ে বগুড়ায় কলেজছাত্রীকে ধর্ষণ ও মা-মেয়েকে ন্যাড়া করে নির্যাতনের বর্বর ঘটনায় জড়িতদের প্রতি সমালোচনা ও ধিক্কার জানায় দেশের সাধারণ মানুষ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ সর্বত্রই চলছে তোলপাড়। নারকীয় এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ আওয়ামী লীগের হাইকমান্ডও।

এরই মধ্যে গ্রেপ্তার হওয়া অভিযুক্ত বগুড়া শহর শ্রমিক লীগের আহবায়ক তুফান সরকারকে গতকাল দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। এ ছাড়া ঘটনার পর থেকেই পালিয়ে থাকা ধর্ষক তুফান সরকারের স্ত্রীর বড় বোন বগুড়া পৌরসভার সংরক্ষিত ওয়ার্ডের নারী কাউন্সিলর মার্জিয়া আক্তার রুমকি ও শাশুড়ি রুমি খাতুনকে গতকাল রাতে পাবনা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তুফান সরকারসহ তিন সহযোগীকে ৩ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন বগুড়ার অতিরিক্ত মুখ্য বিচারিক হাকিম শ্যামসুন্দর রায়ের আদালত।

সরকারের পক্ষ থেকেও ধর্ষকদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। নিরাপত্তা ও চিকিৎসা নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে ক্ষতিগ্রস্ত ছাত্রী ও তার মায়ের। বগুড়া জেলা প্রশাসক তাদের চিকিৎসা ও ছাত্রীকে কলেজে পড়ালেখার দায়িত্ব নিয়েছেন। এ ছাড়া ঘটনা তদন্তে জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকেও পৃথক আরেকটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

গত ১৭ জুলাই বিকেলে কলেজে ভর্তিচ্ছু ছাত্রীকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে বগুড়ার শহর শ্রমিক লীগের আহবায়ক তুফান সরকার। বিষয়টি ধামাচাপা দিতে ২৮ জুলাই (শুক্রবার) তিনি ও তার সহযোগীরা দলীয় ক্যাডার ও এক নারী কাউন্সিলরকে ধর্ষণের শিকার মেয়েটির পেছনে লেলিয়ে দেন। চার ঘণ্টা ধরে তারা ছাত্রী ও তার মায়ের ওপর নির্যাতন চালান। এরপর দু’জনেরই মাথা ন্যাড়া করে বগুড়া ছেড়ে চলে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। ধর্ষণের শিকার মেয়েটি তার মাসহ বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

বাড়ি থেকে ক্যাডার দিয়ে তুলে নিয়ে বগুড়ায় ছাত্রীকে ধর্ষণ ও ছাত্রীসহ তার মাকে ন্যাড়া করার চাঞ্চল্যকর ঘটনায় দেশের সর্বস্তরের মানুষ ধিক্কার দিচ্ছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনার ঝড় বইছে। অন্যদিকে নারকীয় এ ঘটনায় আওয়ামী লীগের হাইকমান্ড ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বগুড়ার নারকীয় ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে গতকাল  বলেন, ‘এ ঘটনার উপযুক্ত শাস্তি হবে। কোনো ছাড় পাবে না ধর্ষক। অভিযুক্ত যেহেতু আমাদেরই একটি অঙ্গ সংগঠনের নেতা, সে জন্য তাকে ঐ অঙ্গ সংগঠন থেকেই ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।’

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক মন্ত্রী আবদুর রাজ্জাক  বলেন, ‘দলের কোন নেতার অপরাধ-অপকর্মের দায় দল নেবে না। দলের ভাবমূর্তি যদি কেউ ক্ষুণœ করে, দল থেকে তাকে শুধু বহিষ্কারই নয়, তার শাস্তিও নিশ্চিত করতে সহযোগিতা করবে দল।’ তিনি বলেন, ‘বগুড়ার ঘটনায় আওয়ামী লীগের হাইকমান্ড ক্ষুব্ধ। এমন নারকীয় ঘটনা শ্রমীক লীগের নেতা কেন, যে কেইউ করলে তার পক্ষ নেওয়ার কোন সুযোগ নেই। আমরাই এই ধর্ষকের সর্বোচ্চ শাস্তি চাই।’

আওয়ামী লীগের একটি সূত্র জানায়, গতকাল বিকেলে কেন্দ্রের নির্দেশে অভিযুক্ত শহর শ্রমিক লীগের আহবায়ক তুফান সরকারকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। আর সরকারের পক্ষ থেকে ধর্ষকদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। নিরাপত্তা ও চিকিৎসা নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে ক্ষতিগ্রস্ত ছাত্রী ও তার মায়ের।
বগুড়ার ঘটনার তদন্ত করবে আ’লীগ :এদিকে ছাত্রীকে ধর্ষণ এবং ধর্ষিতা ও তার মায়ের মাথা ন্যাড়া করে দেওয়ার ঘটনার তদন্ত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আওয়ামী লীগ। গতকাল আওয়ামী লীগের ধানমন্ডি কার্যালয়ে দলের সম্পাদকমণ্ডলীর এক সভায় এ সিদ্ধান্ত হয় বলে উপস্থিত নেতারা জানিয়েছেন।

বৈঠক সূত্র জানায়, দলের কৃষিবিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী বগুড়ার ঘটনা উলে­খ করে বলেন, এ ঘটনায় দল দুর্নাম কুড়িয়েছে। দলের ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত করেছে। এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া উচিত। এর বিচার হতে হবে।

এ সময় দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, কৃষক লীগ ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন। সরাসরি ব্যবস্থা নেওয়া যায় না। কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বলা হবে। আর দল থেকে তদন্ত করা হবে।

এদিকে বগুড়া সদর থানায় দায়ের করা মামলায় তুফান সরকারসহ তিনজনের ৩ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। গতকাল বগুড়ার অতিরিক্ত মুখ্য বিচারিক হাকিম শ্যামসুন্দর রায় এ রিমান্ড আদেশ দেন। রিমান্ড মঞ্জুর হওয়া অন্য দুই আসামি হলেন তুফানের সহযোগী শহরের চকসূত্রাপুর কসাইপট্টির আলী আজম ওরফে ডিপু এবং কালীতলা এলাকার রূপম। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকারোক্তি দেওয়ায় অন্য আসামি আতিকুর রহমানকে রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করা হয়নি।

ধর্ষণের শিকার মেয়েটি এখনো অসুস্থ। মাসহ তিনি এখন বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের প্রধান আবদুল মোত্তালেব হোসেন গতকাল আলেকিত সময়কে বলেন, ‘মেয়েটির শরীরে লোহা বা রড জাতীয় বস্তু দিয়ে সাত থেকে আট জায়গায় আঘাত করা হয়েছে। শরীরে ফোলা ও জখম রয়েছে। তবে তিনি শঙ্কামুক্ত।’

জেলা প্রশাসক (ডিসি) নূরে আলম সিদ্দিকী গতকাল বেলা ১১টার দিকে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছাত্রী ও তার মাকে দেখতে যান। প্রশাসনের পক্ষ থেকে তিনি তাদের সম্পূর্ণ চিকিৎসা ও আইনি সহায়তা দেওয়ার দায়িত্ব নেন। মেয়েটির ফলাফলের ভিত্তিতে তার কলেজে ভর্তিরও দায়িত্ব নেন ডিসি।

বগুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তী  জানান, নতুন কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি। নির্যাতনকারী নারী কাউন্সিলর ও অন্যদের আটকের চেষ্টা চলছে। তিনি আরও জানান, তুফান সরকারের বিরুদ্ধে মাদকের দুটি মামলা রয়েছে। এর আগে তার বিরুদ্ধে যুবদল নেতা ইমরান হত্যা মামলা ছিল। মেয়েটির ধর্ষণের ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য আবেদন করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

ক্যাডার দিয়ে তুলে নিয়ে বগুড়ায় ছাত্রী ধর্ষণ ও ছাত্রীসহ তার মাকে ন্যাড়া করার ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আবদুস সামাদ প্রধানের নেতৃত্বে কমিটিতে আছেন, জেলা সমাজসেবা অধিদপ্তরের উপপরিচালক শহীদুল ইসলাম খান ও জেলা মহিলাবিষয়ক কর্মকর্তা শহীদুল ইসলাম।
মাসহ নারী কাউন্সিল গ্রেপ্তার : বগুড়ায় ‘ধর্ষণের শিকার’ এক কিশোরী ও তার মায়ের মাথা ন্যাড়া করে দেওয়া ঘটনায় শ্রমিক লীগ নেতা তুফান সরকারের শাশুড়িসহ দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এরা হলেন-তুফানের স্ত্রীর বড় বোন বগুড়া পৌরসভার সংরক্ষিত ওয়ার্ডের মহিলা কাউন্সিলর মারজিয়া হাসান রুমকি ও শাশুড়ি রুমি খাতুন।

বগুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তী জানান, গতকাল সন্ধ্যায় পাবনা শহর থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।
জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম জানান, এ ঘটনা খুবই জঘন্যতম। কাউকে মুখ দেখানো যাচ্ছে না। দলীয়ভাবে তিনি লজ্জিত বলে জানান। বগুড়া শহর শ্রমিক লীগের আহবায়ক তুফান সরকারের ব্যাপারে তিনি আরও বলেন, এমন কোনো অপকর্ম নেই যা এ নেতা করেন না। তার অভিযোগ, শ্রমিক লীগের এক নেতার ছত্রচ্ছায়ায় আছেন তুফান।

এ ঘটনায় কিশোরীর মা বাদী হয়ে শুক্রবার রাতে শ্রমিক লীগ নেতা তুফান সরকার, তার স্ত্রী আশা সরকার, আশা সরকারের বড় বোন বগুড়া পৌরসভার সংরক্ষিত ওয়ার্ডের নারী কাউন্সিলর মার্জিয়া আক্তারসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও নির্যাতনের অভিযোগে দুটি মামলা করেছেন।

loading...

About sylhet24 express

Check Also

প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার চক্রান্তের খবর নাকচ আমুর

অনলাইন ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যায় জঙ্গিদের একটি চক্রান্ত বানচাল করা হয়েছে বলে যে খবর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *