loading...
Home / লাইফ- স্টাইল / রাতের সুখ বাড়াবে আয়না

রাতের সুখ বাড়াবে আয়না

রাতের সুখ বাড়াবে আয়না
রাতের সুখ বাড়াবে আয়না

 

অনলাইন ডেস্ক : আয়নায় নিজেকে দেখতে কে না ভালোবাসেন। শুধু নিজের প্রতিবিম্ব দেখাই নয়, আয়না এখনো ফ্যাশনেরও অনুষঙ্গ। পোশাক, তৈজসপত্রসহ বহু ক্ষেত্রেই এখন আয়নার ব্যবহার বাড়ছে। এমন কোনো ঘর পাওয়া কঠিন হবে যেখানে আয়না নেই।

শপিং মলের ট্রায়াল রুম থেকে বাথরুম, সর্বত্রই মোড়া থাকে আয়নায়। যাতে নিজের কাছেই সুন্দরভাবে ধরা দিতে পারেন নিজে। কিন্তু শুধু চেহারা দেখার জন্যই নয়, দাম্পত্ব জীবনেও আয়না বড়সড় ভূমিকা পালন করে।

অনেকে ঘর সাজাতে ছোট-বড়, বিভিন্ন আকৃতি, নকশার আয়না ব্যবহার করে থাকেন। বাড়ির কয়েকটি বিশেষ জায়গায় আয়না রাখলে যৌনজীবন আরো সুখকর হয়ে উঠতে পারে। কোনো অলীক কল্পনা বা কুসংস্কার নয়। একেবারে বিজ্ঞানসম্মত ভাবেই এমনটা হয়। কোথায় এবং কীভাবে আয়নাগুলো সেট করতে হবে। কীভাবেই বা সঙ্গম হয়ে উঠবে আরো মধুর।

কোনো দম্পতির জন্যই মিলনের সবচেয়ে স্বস্তিকর ও আরামদায়ক জায়গা নিজেদের বেডরুম। আর সেখানে যদি পার্টনারের থেকে মেলে বাঁধভাঙা আনন্দ, তাহলে তো আর কথাই নেই। শোয়ার ঘরের দরজায় লাগিয়ে ফেলতে হবে একটি লম্বা আয়না। যাতে মোটামুটি আপাদমস্তক দেখা যাবে। আয়নার সামনে মিলনের সময় একজন আয়নার দিকে তাকালে স্বাভাবিকভাবেই অন্যজনেরও চোখ যাবে। সেই সময় পার্টনারের কানে বলুন, ‘এভাবে তোমাকে নিজের সঙ্গে দেখতে দারুণ লাগে।’ তাহলেই মিলনের আগ্রহ তীব্র হয়ে ওঠে। নতুনভাবে খুঁজে পাবেন নিজেদের।

পার্টনারকে চূড়ান্ত সুখ দেয়ার আদর্শ স্থান হলো ড্রেসিং টেবলের আয়না। পার্টনার আয়নার সামনে দাঁড়ালে তার পেছনে গিয়ে দাঁড়ান। ধীরে ধীরে তার পোশাক খুলতে থাকুন। আয়নার সামনে চুম্বন আর আপনার হাতের ছোঁয়া তাকে মুগ্ধ করতে বাধ্য। প্রেমিকা বা স্ত্রীর শরীরের স্পর্শকাতর অংশগুলো আপনার হাতের স্পর্শ তার হৃদস্পন্দন বাড়িয়ে তোলার জন্য যথেষ্ট। এভাবে ড্রেসিং টেবিলের আয়না মহিমা বাড়িয়ে দিতে পারে।

সেক্স পজিশনগুলো কাছ থেকে দেখতে পেলে স্বাভাবিকভাবেই উত্তেজনা বেড়ে ওঠে। এতে দীর্ঘায়ু হয় আপনার যৌনজীবন। তবে এর একটা ক্ষতিকারক দিকও আছে। অনেকে বেশি করে আয়নার দিকে মন দিতে গিয়ে অন্যমনষ্ক হয়ে পড়েন।

সাধারণত বাড়িতে এই অপশনটি পাওয়া যায় না। তবে অনেক হোটেলের রুমে সিলিংয়ে সেট করা থাকে আয়না। শুধুই মুখ দেখার জন্য নয়। দম্পতিদের আরো কাছাকাছি আনতেই এই ব্যবস্থা। সিলিংয়ে আয়নার বিশেষত্ব হলো এতে পার্টনার মিলনে ঠিক কতটা উপভোগ করছেন তা স্পষ্ট বোঝা যায়। পার্টনারের মুখ অথবা অর্গ্যাজমের ছবি খুব স্পষ্টভাবে চোখে পড়ে। অনেকে অবশ্য আয়না থাকলে এ সব বিষয়গুলোতে লজ্জাই পান। কিন্তু অনেকে তা দারুণ উপভোগ করেন। আপনি যদি দ্বিতীয় তালিকার ব্যক্তি হন, তাহলে বেডরুমের সিলিংয়েও আয়না বসিয়ে নিতে পারেন।
Loading...
loading...

ভিডিওটি দেখতে নিচে ক্লিক করুন



Loading...

About sylhet24 express

Check Also

মা-বাবার বিচ্ছেদ কি সন্তানকে হেয় করে?

অনলাইন ডেস্ক : আসিফ (ছদ্মনাম) ক্লাসে হঠাৎ চুপচাপ হয়ে পড়েছে। ফলও খুব খারাপ হচ্ছে। সহপাঠীদের সঙ্গে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *