loading...
Home / ইসলাম / আজ ২৬ রমজান পবিত্র লাইলাতুল কদর

আজ ২৬ রমজান পবিত্র লাইলাতুল কদর

রমজান

নিজস্ব প্রতিবেদক : আজ ২৬ রমজান। অদ্য দিবাগত রাতটি ২৭ রমজানের বিজোড় রাত। এ রাতে লাইলাতুল কদর হওয়ার সমূহ সম্ভাবনা রয়েছে। সুতরাং এ রাতে ইবাদত বন্দেগি অধিক হারে আদায় করা সকল মুসলমানের একান্ত কর্তব্য। কোরআনুল কারিমে মহান রাব্বুল আলামিন ইরশাদ করেছেন : ‘নিশ্চয়ই আমি এটি লাইলাতুল কদরে নাজিল করেছি। তোমাকে কি জানাব লাইলাতুল কদর কি? লাইলাতুল কদর হাজার মাস অপেক্ষা উত্তম। সে রাতে ফেরেশতারা ও রূহ (জিব্রাইল) তাদের রবের অনুমতিক্রমে সকল সিদ্ধান্ত নিয়ে অবতরণ করে। শান্তিময় সেই রাত ফজরের সূচনা পর্যন্ত’। (সূরা আল কদর : ১-৫)।

হযরত আবু হুরায়রা (রা:) হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সা: বলেছেন, লাইলাতুল কদরে যে ব্যক্তি ঈমান ও সওয়াবের নিয়তে কিয়াম করবে, তার পূর্বের সকল পাপ মোচন করা হবে। (সহিহ বুখারি : হাদীস নং-১৮০২; সহিহ মুসলিম : হাদীস নং ৭৬০)। হযরত আবু হুরায়রা (রা:) থেকে বর্ণিত রাসূলুল্লাহ সা: লাইলাতুল কদর সম্পর্কে বলেছেন : লাইলাতুল কদর সাতাশ অথবা উনত্রিশ রাত, সে রাতে পৃথিবীতে ফেরেশতাদের সংখ্যা কঙ্করের চাইতে অধিক হয়। (মোসনাদে আহমাদ : খ–২, পৃষ্ঠা ৫১৯; তায়ালিমি : হাদীস নং-২৫৪৫, ইবনে সুযাইমাহ : হাদীস নং-২১৯৪)।

মির ইবনে হুবাইশ (রা:) বলেন, আমি উবাই ইবনে কা’বকে জিজ্ঞাসা করে বলি, তোমার ভাই ইবনে মাসউদ (রা:) বলেন, যে ব্যক্তি সারা বছর রাতে কিয়াস করবে, সে লাইলাতুল কদর লাভ করবে। তিনি বললেন, আল্লাহ তার ওপর রহম করুন। তার উদ্দেশ্য হলো মানুষ যেন অলস না হয়। অন্যথায় তিনি ভালো করে জানেন যে, লাইলাতুল কদর রমজানের বিশেষ করে শেষ দশকে বরং সাতাশে। অতঃপর তিনি শপথ করে বলেন, এতে সন্দেহ নেই লাইলাতুল কদর সাতাশের রাতে। আমি বললাম, আপনি তা কীভাবে বলেন, হে আবদুর রহমান? তিনি বললেন, নিদর্শন দেখে অথবা রাসূলের বাতলানো আলামত দেখে। সেদিন সূর্য উদিত হবে যে, তার কিরণ থাকবে না। (সহীহ মুসলিম : হাদীস নং-৭৬২, সুনানে আবু দাউদ : হাদীস নং-১৩৭৮; জামে তিরমিজি : হাদীস নং-৩৩৫১; মোসনাদে আহমাদ; খ–৫৪, পৃষ্ঠা-১৩০)।
ইমাম আহমাদ বিন হাম্বলের এক বর্ণনায় আছে : সেদিন সকালে সূর্য উদিত হবে, যেন তা গামলা, যার কোনো আলো নেই। (মোসনাদে আহমাদ : খ–৫, পৃষ্ঠা-১৩০)।

তিরমিজির এক বর্ণনায় আছে, উবাই বলেছেন, আল্লাহর শপথ! আল্লাহর শপথ! আবদুল্লাহ ইবনে মাসউদ নিশ্চিত জানে যে, লাইলাতুল কদর রমজানে এবং তা সাতাশে। কিন্তু তিনি তোমাদেরকে সংবাদ দিতে চাননি, যেন তোমরা অলস হয়ে বসে না থাক। (জামে তিরমিজি : হাদীস নং-৭৯৩)।

আমীরে মুয়াবিয়া (রা:) থেকে বর্ণিত রাসূলূল্লাহ সা: বলেছেন, লাইলাতুল কদর হচ্ছে সাতাশের রাত। (আবু দাউদ : হাদীস নং- ১৩৮৬., ইবনে হিব্বান : হাদীস নং-৩৬৮০)।
হযরত আবদুল্লাহ ইবনে আব্বাস (রা:) বলেন, এক ব্যক্তি রাসূলুল্লাহ সা:-এর নিকট এসে জিজ্ঞেস করল, হে আল্লাহর নবী! আমি খুব বৃদ্ধ ও অসুস্থ লোক। আমার দ্বারা দাঁড়িয়ে থাকা খুবই কঠিন। সুতরাং আজকে আমাকে এমন এক রাতের কথা বলুন যেন সে রাতে আল্লাহ আমাকে লাইলাতুল কদর দান করেন। তিনি বললেন, তোমার উচিত সাতাশকে আঁকড়ে ধরা। (আহমাদ : খ–১, পৃষ্ঠা-২৪০; বায়হাকী : খ–৪, পৃষ্ঠা-৩১২; তাবরানী ফিল কাবীর : হাদীস নং-১১৮৩৬; মাজমাউজ যাওয়ায়েদ খ–৩, পৃষ্ঠা ১৭৬)।

আলেমদের বিশুদ্ধ শর্ত হচ্ছে এই যে, লাইলাতুল কদর পরিবর্তনশীল। তবে সাতাশের রাত অধিক সম্ভাবনাময়। যেমন হযরত উবাই ইবনে কা’ব শপথ করে বলেছেন।

মহামান্বিত এ দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ ও প্রধাননমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক পৃথক বাণী দিয়েছেন। রাষ্ট্রপতি তার বাণীতে বাণীতে বলেন, মহামহিমান্বিত রজনী পবিত্র লাইলাতুল কদর উপলক্ষে আমি বাংলাদেশসহ মুসলিম বিশ্বের সবাইকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ জানাই। তিনি বলেন, হাজার মাসের চেয়ে উত্তম পবিত্র লাইলাতুল কদর সমগ্র মানব জাতির জন্য অত্যন্ত মঙ্গল ও পুণ্যময় রজনী। আমাদের ক্ষণস্থায়ী জীবনে হাজার মাসের চেয়ে বেশি ইবাদতের নেকি লাভের সুযোগ এনে দেয় এ রাত। মহান আল্লাহ্তায়ালা এই রজনীতে তার অশেষ রহমত, বরকত ও ক্ষমার ভাণ্ডার অবারিত করে দেন। মহিমান্বিত এ রাতের ফজিলত ও তাৎপর্য তাই অপরিসীম। তিনি বলেন, মহান আল্লাহ্ লাইলাতুল কদরে তার অফুরন্ত রহমত ও বরকত দ্বারা আমাদের সবার জীবনকে পরিপূর্ণ করে দেন- এই প্রার্থনা করি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার বাণীতে বাণীতে বলেন, সিয়াম সাধনার মাস রমজানের এক মহিমান্বিত রাত লাইলাতুল কদর। এ রাতে মানবজাতির পথ নির্দেশক পবিত্র আল্- কোরান পৃথিবীতে নাজিল হয়। কোরানের শিক্ষা আমাদের পার্থিব সুখ-শান্তির পাশাপাশি আখিরাতের মুক্তির পথও দেখায়। তিনি বলেন, পবিত্র এই রাতে ইবাদত আর বন্দেগির মাধ্যমে আমরা মহান আল্লাহ্র নৈকট্য লাভ করতে পারি। অর্জন করতে পারি তার অসীম রহমত, বরকত ও মাগফিরাত। এই পবিত্র রজনীতে আমি মহান আল্লাহ্ রাব্বুল আল আমিনের কাছে প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশ ও মুসলিম জাহানের উত্তরোত্তর উন্নতি, অব্যাহত শান্তি ও কল্যাণ কামনা করছি। এছাড়া বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া পৃথক বাণীতে দেশ, জাতি ও মুসলিম উম্মাহ্র অগ্রগতি ও সমৃদ্ধি কামনা করেন।

Loading...
loading...

ভিডিওটি দেখতে নিচে ক্লিক করুন



Loading...

About admin

Check Also

ইসলাম

আল্লাহ ধৈর্যশীলদের সঙ্গে থাকেন

সিলেট টুয়েন্টিফোর এক্সপ্রেস ডেস্ক : প্রতিটি জীবকেই মৃত্যুবরণ করতে হবে। জীবনের পরিসমাপ্তি ঘটে মৃত্যুর মাধ্যমে। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *